× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার

রূপগঞ্জে কোটি টাকার সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রূপগঞ্জ থেকে | ১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৮:০০

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র জালিয়াতি করে একটি প্রতারকচক্র কোটি টাকার সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টা করছে। এ ঘটনায় পরিষদ চেয়ারম্যানের ভাবী ও একই ইউনিয়নের প্রয়াত চেয়াম্যানের স্ত্রীকে সামনে রেখে চক্রটি ফায়দা লুটার চেষ্টা করছে। এতে মারত্মকভাবে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন চেয়ারম্যান। উপজেলার ভূলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আরিফ ভূঁইয়ার দপ্তরের কাগজপত্র ও স্বাক্ষর জালিয়াতি করেছেন তারই ভাবী শামীমা সুলতানা ঝিনুসহ একটি প্রতারকচক্র।
জানা যায়, উপজেলার গোলাকান্দাইল ইউনিয়নের আমলাবো মৌজায় এসএ ১৩৪৩ ও আরএস ১৮৪৬ নং দাগে ১৪ শতাংশ ভূমির মালিক কোকিলা সুন্দরী ও যুদিষ্টি এর ওয়ারিশের কাছ থেকে নরসিংদী এলাকার জনৈক আমিনুল ইসলাম প্রায় ৩ কোটি টাকা দিয়ে সম্পত্তি ক্রয় করেন। তার কাছ থেকে পূর্ণক্রয় করে বর্তমানে ভোগদখলে রয়েছেন ভূলতা বলাইখা এলাকার সুরাইয়া আক্তার ও লায়লা আক্তার। একই ভূমি ভূলতা ইউনিয়ন পরিষদের সিলমাহর ও স্বাক্ষর জাল-জালিয়াতি করে নিজেদের দাবি করছে স্থানীয় একটি প্রতারকচক্র। চক্রটি পরিষদের সাবেক প্রয়াত চেয়ারম্যান মরহুম হারুনুর রশিদ ভূঁইয়ার স্ত্রী শামীমা সুলতানা ঝিনুকে নানাভাবে প্রলুব্ধ করে এমন ভয়ঙ্কর প্রতারণা করেছে। তারা আমমোক্তারনামা দলিল নং-১২৭০ তাং ২৯/০১/২০২০ মূলে জমিটি শামীমা সুলতানা ঝিনুর বলে দাবি করেন।
পরবর্তীতে এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্যর বাড়িতে সালিশি বৈঠক হলে প্রতারণার বিষয়টি সামনে আসে। শুধু তাই নয়, চক্রটি শামীমা সুলতানা ঝিনুকে আগামীদিনের ভূলতা পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে নানাভাবে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। এসব ব্যাপারে ভূলতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আরিফ ভূঁইয়া জানান, চলতি বছরের জানুয়ারিতে তার ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ারিশ সনদ স্মারক নং-৩২/৩৩/৩৪/৩৫-২০২০ স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ভূলতা ইউনিয়নের নাগরিক দেখিয়ে ৪টি ভুয়া ওয়ারিশ সনদ  তৈরি করেছে প্রতারক চক্রটি। তিনি বলেন, সবচেয়ে ভয়াবহ ব্যাপার হলো আমার প্রয়াত ভাই একই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম হারুনুর রশিদ ভূঁইয়ার স্ত্রী শামীমা সুলতানা ঝিনুর নামে ভুয়া দলিল করেছে তারা। এ অবস্থায় মারত্মক বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছে আমাদের পরিবার। এ ব্যাপারে শামীমা সুলতানা ঝিনুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রতারণার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, উক্ত সম্পত্তি আমার প্রয়াত স্বামীর। তারা যাকে দাতা সাজিয়ে জমি ক্রয় করেছে সে নিজেই স্বীকার করেছে সে প্রকৃত দাতা নয়। আমার দেবর বর্তমান চেয়ারম্যান আরিফ ভূঁইয়া এই সম্পত্তি অন্য লোকজন দিয়ে আত্মসাতের চেষ্টা করছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর