× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

দেড় বছরেও শেষ হয়নি রাস্তার কার্পেটিংয়ের কাজ

বাংলারজমিন

মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি | ১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৮:১৯

 হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার মনতলা করিমশাহ মাজার রাস্তার পাকাকরণের কাজ দেড় বছরেও শেষ করতে পারেনি একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। বার বার কাজ শেষ করার তাগিদ দিলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কোনো কর্ণপাত করেনি। এ কারণে স্থানীয় এলজিইডি অফিস কাজটি বাতিলের জন্য চিঠি দিয়েছে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে। মাধবপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) জুলফিকার হায়দার চৌধুরী সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেসার্স ভাওয়াল কনট্রাকশন নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ৫৮ লাখ টাকা চুক্তি মূল্যে রাস্তাটির কার্পেটিং কাজ সম্পাদন করার চুক্তিবদ্ধ হন। ২০১৮ সালের ৬ই অক্টোবর বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী রাস্তাটির ভিত্তিপ্রস্তর কাজের উদ্বোধন করেন। ২০১৯ সালের ২৬শে মার্চের মধ্যে ১ হাজার মিটার রাস্তার কার্পেটিং কাজ শেষ করার কথা।
কিন্তু ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কিছু ইট ও কংক্রিটের কাজ করে বাকি কাজ বন্ধ করে দেয়। বার বার কাজটি নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করার জন্য তাগাদাপত্র দিলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কোনো গুরুত্ব দেয়নি।
অবশেষে কাজটি বাতিল করার জন্য প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট চিঠি লেখা হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানকে আমরা আর কাজ করতে দেবো না। ওই এলাকার বাসিন্দা সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম শিপন জানান, রাস্তাটি দিয়ে ১০ গ্রামের লোকজন চলাচল করে। রাস্তাটির কিছু অংশে নামে মাত্র কিছু কংক্রিট দেয়া হলেও গাড়ি চলাচলের কারণে কংক্রিটগুলো গুঁড়ো হয়ে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে।
দেড় বছর হলেও কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু হয়নি। সামান্য বৃষ্টি হলে রাস্তাটি কর্দমাক্ত হয়ে যায়। বয়স্ক লোকজন ও রোগীদের চলাচল করতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। ভাওয়াল কন্ট্রাকশনের মালিক বাচ্চু মিয়া জানান, বৃষ্টি বাদলের দিন হওয়ায় কাজ করা যাচ্ছে না। বৃষ্টি বাদল না থাকলে কাজ শুরু হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর