× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার
পুলিশ বলছে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে

নারায়ণগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতার অমানবিক কাণ্ড

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৩:৫০

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের দক্ষিণ পাড়ায় ব্যাটারী চোর সন্দেহে বাছেদ (৩১) নামে এক যুবককে পিটিয়ে অমানুষিক নির্যাতন করে ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম এবং তার সহযোগীরা। আহত বাছেদ উপজেলার  দক্ষিনপাড়া গ্রামের ইয়ানুছ মুন্সির ছেলে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার  ভোরে আড়াইহাজার সরকারী সফর আলী কলেজের সাবেক জি,এস সাইফুল ইসলাম ওই গ্রামের অজিৎ এর ছেলে  অপুকে দিয়ে বাছেদকে তার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় সাইফুলের মামা জহিরুলের বাড়িতে। ওই বাড়িতে নিয়ে রিকশার ব্যাটারী চোর সন্দেহে বাছেদকে রশি দিয়ে বেধে জরিমানা বাবদ ৪ লাখ টাকা দাবী করে। টাকা দিতে অপারগতা জানালে সাইফুল, অপু, আরিফ এবং কামরুল তাকে লোহার রড দিয়ে তার উপর অমানুষিক নির্যাতন চালায়। এমনকি তারা বাছেদের আঙ্গুল প্লাস দিয়ে চেপে ধরে জখম করে। তাদের অমানুষিক নির্যাতনে বাছেদের সমস্ত দেহ ফুলে যায়। পরে এলাকার লোকজনের সহায়তায় স্বজনরা বাছেদকে উদ্ধার করে আড়াইহাজার স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করে।
আহত বাছেন নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করে বলে জানা গেছে। অভিযোগ রয়েছে, মামলা না করার জন্য অভিযুক্তরা হুমকি দিচ্ছে।


এ ব্যাপারে বাছেদ বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। আড়াইহাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সালেহ আহমেদ জানান, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের  চেষ্টা চলছে।
 
এ ব্যাপারে আড়াইহাজার থানার অফিসার ইনইচার্জ (ওসি) মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক
১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৯:৫৯

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কিন্তু এমন না।

ওমর ফারুক
১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ৪:৩৩

তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। মানে এখনো মামলা রুজু হয়নি। এরা দেমটাকে ত্দের পৈত্রিক সম্পত্তি মনে করছে। এসবের জন্য মুক্তি যুদ্ধ করে দেশ স্বাদিন করা হয়নি। দেশে এমন অরাজকতা ১৯৭৪ এ ও করে বঙ্গবন্ধুকে হারাতে হরো। আবার তারা কোন ফন্দি করছে। প্রধানমন্ত্রী কি পত্রিকার সংবাদের দিকে ও নজর দেন না? বঙ্গবন্ধুর আদর্শ কিন্তু এমন না।

অন্যান্য খবর