× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার
বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচন

সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী থেকে | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৮:৪৪

নোয়াখালীর প্রথম  শ্রেণির পৌরসভা বসুরহাটে তফসিল ঘোষণার আগেই নির্বাচন নিয়ে তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। এখানে মেয়র পদে বিকল্প প্রার্থী না থাকায় বর্তমান মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকেই দলীয় মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করে মাঠে- ময়দানে কাজ শুরু করেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এদিকে বিএনপি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থী ঘোষণা না দিলেও এ নিয়ে তাদের জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। তবে এবার দলীয়ভাবে সমঝোতা না করে প্রার্থী দিলে চরম বেকায়দায় পড়তে পারেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ঘোষিত মেয়র প্রার্থী। কারণ ২০০৪ সালে বিএনপি’র ক্ষমতার সময় ব্যারিস্টার মওদুদ আইনমন্ত্রী থাকাবস্থায় সমন্বয় না করে প্রার্থী দেয়ায় উনার প্রার্থী কামাল উদ্দিন চৌধুরীর বিপরীতে পৌরসভার বাহির থেকে নিয়ে আসা স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রফেসর মোহাম্মদ আলী যে চমক দেখিয়েছেন তা আজো সকলের মনে আছে। তখন কামাল চৌধুরীকে মেয়র বানাতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে ক্ষমতাসীন মওদুদ আহমদকে। এদিকে মওদুদ আহমদের মনোনীত বিএনপি প্রার্থী হিসেবে কামাল উদ্দিন চৌধুরীর নাম শোনা গেলেও এবার বিভিন্ন কারণে তিনি নির্বাচন করতে সম্মত না বলে আভাস দিয়েছেন তাঁর ঘনিষ্ঠজনরা। সেই ক্ষেত্রে পৌর বিএনপি’র সভাপতি ও বসুরহাট ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন লিটনের নামও বেশ আলোচিত হচ্ছে।
অপরদিকে স্থানীয় বিএনপি দলীয়ভাবে সমঝোতায় না আসতে পারলে বিএনপি’র অপর বিদ্রোহী অংশটি চমক নিয়ে মাঠে নামার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তাদের দাবি, মুছাপুরের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম শিকদারকে প্রার্থী দিয়ে নতুন চমক সৃষ্টির বিষয়টি অমূলক নয়। এজন্য নুরুল আলম শিকদারের ভোটার পরিবর্তনের আভাসও দিয়েছে বিশ্বস্ত সূত্রটি। এ নিয়ে বসুরহাট পৌরসভায় চায়ের দোকান সহ শহরের অলিতে-গলিতে চায়ের টেবিলে আলোচনার ঝড় উঠেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর