× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার

সিলেটে পদ বঞ্চিত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৯:০৭

নেত্রীর সিদ্ধান্ত অমান্য করে নিজস্ব বলয়ের অখ্যাতদের নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের কমিটির খসড়া জমা দেয়ার প্রতিবাদে বঞ্চিত আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিবাদ মিছিল বের করা হয়েছে। শনিবার বিকালে নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকা থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে তালতলায় গিয়ে এক সংক্ষিপ্ত পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ মিছিল পরবর্তী পথসভায় বক্তারা বলেন যে, দীর্ঘ নয় মাস পর জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি হতে যাচ্ছে শুনে আমরা বুকভরা আশা নিয়ে ছিলাম দলের পরীক্ষিত এবং ত্যাগী নেতাদের প্রস্তাবিত খসড়া কমিটিতে মূল্যায়ন করা হবে কিন্তু তৃণমূল নেতাদের যথাযথ মূল্যায়ন না করে, দলীয় সভানেত্রীর আদেশ অমান্য করে নিজ পছন্দের কর্মীদের (মাইম্যান) গুরুত্বপূর্ণ  পদে দেয়া, ত্যাগী নেতাদের বাদ দেয়ার মতো ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে। তারা বলেন, জেলা কমিটিতে বিতর্কিত ব্যবসায়ী, বালু-পাথর খেকো, দুর্নীতিবাজ, বঙ্গবন্ধু হত্যার খুনি পরিবারের সদস্য দিয়ে প্রস্তাবিত খসড়া কমিটি কেন্দ্রে প্রেরণ নিয়ে জেলা পর্যায়ে বিক্ষোভ- প্রতিবাদ জানাই। জেলা আওয়ামী লীগের গত কমিটির পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেব পরিচিত সিলেট ৪ আসনের ৭ বারের সংসদ সদস্য বর্তমান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি মহোদয়কে জেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত খসড়া কমিটিতে সদস্য পদে রাখা হয়নি। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান দুর্দিনের কারা নির্যাতিত ত্যাগী নেতা এম. শাহরিয়ার কবির সেলিমকে গত দুই কমিটিতে রাখা হয়নি। বিয়ানীবাজারের বাসিন্দা হওয়াতে এবং এবারের বর্তমান সাধারণ সম্পাদকের বাড়ি বিয়ানীবাজার হওয়াতে প্রতিদ্বন্দ্বী ভেবে এবারও জেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত খসড়া কমিটিতে ন্যূনতমে সদস্য পদেও রাখা হয়নি। জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক ত্যাগী নেতা জগলু চৌধুরী, দুর্দিনে সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এবং জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে এডভোকেট সালেহ আহমদ হীরাকে প্রাণে মারার উদ্দেশে গুলি করে সেইদিন আল্লাহ্র অশেষ কৃপায় গুরুতর আহত অবস্থায় বেঁচে যান এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সম্পাদকম-লীর সদস্য এডভোকেট শেখ মকলু মিয়াকে ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত খসড়া কমিটিতে সদস্য পদেও রাখা হয়নি।
মিছিল-পরবর্তী পথসভায় উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা কয়েছ আহমদ, মাহবুবুল হক, আব্দুল মুতলিব, সোবহান আহমদ, নোমান আহমদ, জসিম উদ্দিন, নাজমুল ইসলাম মাসুম, রেজানোর রহমান সেলিম, ইয়াছিন আহমদ সুমন, রকিব আলী, মীর্জা হামিদ অভি, ফয়ছল আহমদ, নবী হোসেন জীবন প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর