× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার
কলকাতা কথকতা

মুর্শিদাবাদে ধৃত ছয় আল কায়েদা জঙ্গিকে নিয়ে মমতা বনাম বিরোধী কাজিয়া তুঙ্গে

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৯:৪২

শনিবার সকালে এর্নাকুলামে দুজন এবং পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদে ভারতের ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেটিং এজেন্সির হাতে ধরা পড়া আল কায়েদা জঙ্গিদের নিয়ে এখন রাজনৈতিক কাজিয়া তুঙ্গে। পশ্চিমবঙ্গে বিরোধীদের অভিযোগ, মমতা বন্দোপাধ্যায় এর সাম্প্রদায়িক রাজনীতির ফসল এই জঙ্গিদের উত্থান। মুর্শিদাবাদের নেতা, লোকসভায় কংগ্রেস এর প্রমুখ অধীর চৌধুরী সাফ বলেছেন, মমতা বন্দোপাধ্যায় এর বিভেদের এবং সাম্প্রদায়িক রাজনীতির ফলেই রাজ্যে জঙ্গিয়ানা মাথা চারা দিচ্ছে। সংকীর্ণতার রাজনীতি জাতীয় নিরাপত্তাকে বিঘ্নিত করছে। বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেছেন, জঙ্গিরা রাজ্যে বহাল তবিয়তে বাস করলো আর গোয়েন্দারা জানতে পারল না। মমতা বন্দোপাধ্যায় এর ইন্টেলিজেন্স বিভাগের এ এক ব্যর্থতার নজির। রাহুল বাবু বলেন, দু দশক আগে বউবাজারে এক বিস্ফোরণে অনেক লোক প্রাণ হারিয়েছিল আর এখন গোটা রাজ্যই বারুদের স্তুপের ওপর। তৃণমূল কংগ্রেস বিরোধীদের এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, রাজ্যে গোয়েন্দারা সতর্ক ছিল বলেই আল কায়েদা জঙ্গিদের ধরা সম্ভব হয়েছে।
তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেছেন, সীমান্ত পাহারা দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স। তাদের নজর এড়িয়ে জঙ্গিরা এদেশে ঢুকলে তার দায় কেন্দ্রের।
শনিবার মুর্শিদাবাদে ধৃত ছয় জঙ্গির নাম - নাজমুল সাকিব, আবু সুফিয়ান, মইনুল মন্ডল, লিউইন আহমেদ, আলি মামুন এবং অতিতুর রহমান। এরা পাকিস্তান আল কায়েদার মডুলার সেল। রাজধানী দিল্লিসহ দেশের বিভিন্নস্থানে নাশকতার ছক ছিল এদের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর