× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ অক্টোবর ২০২০, রবিবার

শত কোটি টাকার মালিক গাড়িচালক গ্রেপ্তার

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৮:৩২

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক ডিজি আবুল কালাম আজাদের গাড়িচালক আব্দুল মালেক ওরফে মালেক ড্রাইভারকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র দেখিয়ে ভয়ভীতি, চাঁদাবাজি, জাল টাকার ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগ রয়েছে। তার কাছ থেকে ১ লাখ পঞ্চাশ হাজার জাল টাকা ও একটি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়াস্থ ৪২ নম্বর বামনের টেক হাজী কমপ্লেক্সের ৩য় তলার বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার শত কোটি টাকার সম্পদের সন্ধান পাওয়া গেছে।

র‌্যাবের পরিচালক (মিডিয়া) লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, ড্রাইভার মালেকের বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্র ব্যবসা, জাল টাকা ব্যবসা, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। সে তার এলাকায় সাধারণ মানুষকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে শক্তির মহড়া ও দাপট প্রদর্শনের মাধ্যমে ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করেছে এবং জনজীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছিল।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মালেক জানান, তিনি পেশায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিবহন পুলের একজন ড্রাইভার এবং একজন তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণি। তিনি ১৯৮২ সালে সর্বপ্রথম সাভার স্বাস্থ্য প্রকল্পে ড্রাইভার হিসেবে যোগদান করেন।
পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিবহন পুলে ড্রাইভার হিসেবে চাকরি শুরু করেন। বর্তমানে তিনি প্রেষণে স্বাস্থ্য ও শিক্ষা অধিদপ্তরে কর্মরত রয়েছেন।

সূত্র জানায়, মালেকের স্ত্রীর নামে দক্ষিণ কামাড়পাড়ায় ২টি ৭তলা বিলাসবহুল ভবন আছে। ধানমন্ডির হাতিরপুল এলাকায় ৪.৫ কাঠা জমিতে একটি নির্মাণাধীন ১০তলা ভবন আছে এবং দক্ষিণ কামাড়পাড়ায় ১৫ কাঠা জমিতে একটি ডেইরি ফার্ম আছে। এছাড়া বিভিন্ন ব্যাংকে নামে-বেনামে বিপুল পরিমাণ অর্থ গচ্ছিত আছে বলেও জানা যায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Shafiur Rahman
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ১১:৫৩

Need Crossfire

সচেতন নাগরিক
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৮:৩৩

মুখে দাড়ি রেখে কপালে নামাজ পড়ে ঘটা ফেলে দিয়েছ অথচ চেহারা দেখে মনে হয় কতই না সুফি .... সাইনবোর্ড সর্বস্ব এইসব ব্যক্তিরাই সমাজের শত্রু, ইসলামেরও শত্রু !!

Rasu
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৯:১২

এভাবেই এনাদের ঊর্ধ্বতনরা চাকুরী শেষ অবসরে গিয়ে সমঝোতার ভিত্তিতে কমিশন দেন। আর কমিশন দিতে অস্বীকৃতি জানালেই ধরা পড়ে দুদুক/আইনের জালে...

Mujibur Rahman Sheik
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ৯:১১

Aha ki nurani chehara!

অন্যান্য খবর