× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৩০ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার

লম্পট পিতার বিরুদ্ধে মামলা

বাংলারজমিন

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ৮:৫৩

নাটোরের বড়াইগ্রামে ১৬ বছর বয়সী নিজ মেয়েকে আটকে রেখে লাগাতার দুই মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে পিতার বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় গতকাল সকালে মেয়েটির মা মোসাম্মৎ রেখা বড়াইগ্রাম থানায় ধর্ষক পিতা শরীফুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত শরীফুল ইসলাম (৪০) উপজেলার বড়াইগ্রাম পৌরশহরের গোয়ালফা এলাকার বশরত মণ্ডলের ছেলে।
জানা যায়, শরীফুল ইসলাম সাধক ফকির-তরিকায় সন্ন্যাসীব্রত হলে গত দুই বছর আগে স্ত্রী রেখা তাকে ছেড়ে অন্য একটি এলাকায় বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয় এবং শরীফুল ইসলামের মেয়ে নাটোরের দিঘাপতিয়া পূর্ব হাগুরিয়া গ্রামের তার নানা আনোয়ার হোসেনের বাসায় থাকে। গত কোরবানির ঈদের ৬ দিন আগে লম্পট পিতা শরীফুল বিভিন্ন কৌশলে মেয়েকে বড়াইগ্রামে তার বাড়িতে নিয়ে আসে এবং জোরপূর্বক আটকে রেখে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটি জানায়, সর্বশেষ গত রোববার রাতে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
এর আগে দুই মাস ধরে লম্পট পিতা তাকে নিয়মিতভাবে ধর্ষণ করে আসছে। মেয়েটি এ ঘটনা দাদা বশরত আলী ও তার দাদিকে জানালেও কোনো লাভ হয়নি বরং সে আরো? অসহায় হয়ে পড়ে এবং বিভিন্ন সময় যৌন নির্যাতনের পাশাপাশি শারীরিকভাবেও নির্যাতনের শিকার হয়।
এ ঘটনায় মেয়েটি তার নানীকে খুলে বললে তার মা ও নানী গত সোমবার তাকে উদ্ধার করে এবং থানায় মামলা দায়ের করে। বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলিপ কুমার দাস জানান, এ ব্যাপারে মেয়েটির মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত পিতা পলাতক রয়েছে। তাকে আটক করতে পুলিশ চেষ্টা করছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর