× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু ২ লাখ ছাড়ালো

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ১০:৩৬

শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই করোনা ভাইরাসে মারা গেছেন দুই লাখের বেশি মানুষ। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির ডাটা বলছে, এ সময়ে সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৬৮ লাখ মানুষ। করোনা ভাইরাস বিশ্বের অন্য কোন দেশকে এতটা বিপর্যস্ত করতে পারে নি। ওদিকে নর্থ ডাকোটা এবং ইউটাহ রাজ্য সহ বেশ কিছু রাজ্যে নতুন করে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। নতুন করে যেসব মানুষ মারা যাচ্ছেন মঙ্গলবার তাকে ‘ভয়াবহ বিষয়’ বলে আখ্যায়িত করেছেন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তিনি দাবি করেছেন, এই ভাইরাসের বিস্তার বন্ধ করা উচিত ছিল চীনের। তিনি এ সময় নিজের কৃতীত্ব দাবি করেন। বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি এ বিষয়ে ব্যবস্থা না নিতো তাহলে মৃতের সংখ্যা হতে পারতো ২০ লাখ, ২৫ লাখ বা ৩০ লাখ।
এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

ওদিকে জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি মঙ্গলবার রেকর্ড করে মৃতের মোট সংখ্যা ২ লাখ ৫। গত বছর শেষের দিকে প্রথমে চীনে, পরে তা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময়ে যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের অন্যান্য স্থানে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের ডাটা সংরক্ষণ করতে থাকে এই বিশ্ববিদ্যালয়। যুক্তরাষ্ট্রে এ রোগে প্রথম একজন মারা যান জানুয়ারিতে। এই মহামারি যেভাবে মোকাবিলা করেছেন সেজন্য বার বার সমালোচনা করা হচ্ছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রশাসনকে। ডেমোক্রেট দল থেকে প্রেসিডেন্ট পদে প্রার্থী জো বাইডেন সোমবার বলেছেন, গত ৬ মাস ধরে মিথ্যা বলে এসেছেন ডনাল্ড ট্রাম্প এবং তিনি অযোগ্যতা প্রদর্শন করেছেন। এ জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মানুষের প্রাণহানীর যেসব রেকর্ড আছে, করোনায় মৃত্যু তার অন্যতম। এটা একটা ক্রাইসিস। বাস্তব ক্রাইসিস। এটা এমন এক ক্রাইসিস, যেখানে প্রেসিডেন্ট হিসেবে নেতৃত্বে যিনি আছেন, তাকে সিরিয়াস হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু তিনি তা নন। তিনি ছিলেন হিমায়িত। তিনি পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি ছিলেন ভীতসন্ত্রস্ত। বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে কড়া মূল্য দিতে হয়েছে আমেরিকাকে।

এর জবাব দিয়েছেন ট্রাম্প। বলেছেন, তিনি এবং তার প্রশাসন একটি অসাধারণ কাজ করেছেন। করোনা মহামারি মোকাবিলা করার জন্য নিজেকে তিনি এ+ দিয়েছেন। আরো বলেছেন, এই মহামারির মধ্যে একটি টিকা পাওয়ার খুব কাছে যুক্তরাষ্ট্র।  ওদিকে কয়েক সপ্তাহে নর্থ ডাকোটায় করোনা সংক্রমণ দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে। কর্মকর্তারা বরছেন, সোমবার সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৩২০০ মানুষ। এদিন হাসপাতালে নেয়া হয়েছে ৮৭ জনকে। ইউটা, টেক্সাস ও সাউথ ডাকোটায়ও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ৩০ জুলাই থেকে তৃতীয় বারের মতো আবার উইসকনসিন রাজ্যে জনস্বাস্থ্য ইমার্জেন্সি অর্ডার বৃদ্ধি করা হয়েছে মঙ্গলবার। উদ্বেগ দেখা দিয়েছে যে, সামনেই শীতকাল। এ সময়ে সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পেতে পারে। এ সপ্তাহে এ বিষয়ে সতর্কতা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক ব্যাধি বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসি। তিনি বলেছেন, মার্কিনিদের উচিত হবে শরত ও শীতকালে বাংকারে বসে থাকা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর