× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ অক্টোবর ২০২০, রবিবার

বকেয়া বেতনের দাবীতে কর্মবিরতিতে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর কর্মচারীরা

বাংলারজমিন

শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ১২:০৩

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভায় বকেয়া বেতনের দাবীতে কর্মবিরতি পালন শুরু করছে পৌরসভার কর্মচারীরা। দীর্ঘদিন যাবত মেয়রের সরণাপন্ন হয়েও কোন ফল না পেয়ে উল্টো মেয়র কর্তৃক লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে এ কর্মবিরতি পালন করেছেন তারা। মঙ্গলবার সকাল থেকে শুরু হয়ে বিকেল পর্যন্ত পৌরসভা কার্যালয় প্রাঙ্গণে এ কর্মবিরতি পালন শেষে বুধবার থেকে আবারো কর্মবিরতিতে যায় তারা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের এই অফিস বর্জন কর্মসূচি চলবে বলেও জানায় আন্দোলনরত পৌর কর্মচারিরা। প্রয়োজনে কঠোর আন্দোলনে জাবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেয় তারা।
শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার লাইসেন্স পরিদর্শক সুশীল বসাক জানান, পৌর সভার প্রায় ১৫ থেকে ২০ জন কর্মচারীকে ৭ থেকে ৮ মাস যাবত বেতনসহ কোন ধরণের সুযোগ সুবিধা দিচ্ছেন না মেয়র ছালেক মিয়া। বার বার মেয়রের কাছে গিয়ে বকেয়া বেতনের জন্য বলা হলেও তিনি তাতে কর্ণপাত করেননি। উল্টো কর্মচারীদের লাঞ্চিত করাসহ অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন তিনি।
এছাড়াও মেয়রের পছন্দের কর্মচারীরা ঠিকই বেতনভাতাদি পাচ্ছেন বলেও জানান তিনি। তিনি আরো জানান, দীর্ঘদিন যাবত বকেয়া বেতন না পেয়ে কর্মচারীরা মানবেতর জীবন যাপন করছে। বিষয়টি নিয়ে সকালে পৌর সভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও ভারপ্রাপ্ত সচিব সিরাজুল ইসলামের কাছে গেলে, তিনিও কোন সুরাহা করতে পারেননি। তাই বাধ্য হয়েই আমাদেরকে আন্দোলনে নামতে হয়েছে। সুশীল বসাক আরো জানান, বিষয়টি নিয়ে তারা জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে স্মারকলিপি দেবেন এবং তাদের ন্যায্য অধিকার আদায়ে মাঠে থাকবেন। এছাড়াও পৌর সভার কর আদায়কারী দেবাশীষ দেব, কর নির্ধারক সুজিত কুমার দত্ত, কার্য সহকারী আজিজুল হক, কার্য সহাকারী রিপন মিয়া, কামাল উদ্দিন, ড্রাইভার সেবুল মিয়া, ইউনুছ মিয়া ও জাহির মিয়াসহ কর্মবিরতিতে যোগদেন আরো ১৫ থেকে ২০ জন কর্মচারী।
এ ব্যাপারে পৌর মেয়র মো. ছালেক মিয়া বলেন, সাবেক মেয়রের নিয়োগকৃত কর্মচারিরা পৌরসভার ভাবমূর্তি নষ্ট করতে ভাঙচুর চালানোসহ পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে অসদাচরণ করেছে। তাকে নানা হুমকি ধামকি দিচ্ছে। তারা সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে এ ধরণের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে। তাই আমি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের নিরাপত্তার স্বার্থে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় ৭ জনের নামে একটি মামলা দায়ের করেছি।
এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. আল মামুন জানান, শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. ছালেক মিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি গতকাল প্রাথমিকভাবে তদন্ত করা হয়েছে। বুধবার আবারও বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। পরে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর