× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল চালুর দাবিতে খুলনা ডিসি অফিস ঘেরাও

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে | ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার, ৮:১৪

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল চালুর দাবিতে খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের উদ্যোগে গতকাল বেলা ১১টা ৪৫ মিনিট থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালন করা হয়। অবিলম্বে বন্ধ ২৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রাষ্ট্রীয় মালিকানায় চালু, আধুনিকায়ন, অবসরপ্রাপ্ত ও কর্মরত সব শ্রমিকের বকেয়া পাওনা এককালীন পরিশোধ করাসহ ১৪ দফা দাবিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচির পাশাপাশি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
এর আগে পাটকল রক্ষায় সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের শান্তিপূর্ণ গণমিছিল নগরীর ফেরীঘাট হতে ডাকবাংলো মোড়, পিকচার প্যালেস মোড়, শহীদ হাদিস পার্ক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে দিয়ে ডিসি অফিসে পৌঁছে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি জেলা প্রশাসকের অবর্তমানে উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার বিভাগ)-এর নিকট প্রদান করা হয়।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, পাটকল রাষ্ট্রের সম্পত্তি। রাষ্ট্রের এই সম্পত্তির মালিক শ্রমিক তথা এদেশের জনগণ। পাটকল ও পাটশিল্পের ধ্বংসের পিছনে বিজেএমসি ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ভ্রান্তনীতি, লুটপাট, দুর্নীতিই দায়ী।
অথচ দুর্নীতিবাজদের অন্যায়ের কোনো প্রতিকার না করে তার দায় সম্পূর্ণ শ্রমিকদের উপর চাপিয়ে দিয়ে মিলগুলো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
স্মারকলিপিতে আরো বলা হয়, ৫ হাজার কোটি টাকার শ্রমিক বিদায় নয়, শ্রমিক-কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-এর প্রস্তাবনা অনুযায়ী ১২শ’ কোটি টাকা ব্যয় করে পাটকলগুলো আধুনিকায়ন করতে হবে, তদন্তপূর্বক সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিজেএমসি’র কর্মকর্তাদের দুর্নীতির বিচার করতে হবে, ২০১৩ সালের জুলাই হতে অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণসহ পাওনা এককালীন পরিশোধ করতে হবে। ২০১৯ সালের ৬টি বিল ও ঈদ উল আজহার বোনাস অবিলম্বে পরিশোধসহ ১৪ দফা দাবি বাস্তবায়ন করতে হবে।
ঘেরাও কর্মসূচি পালনকালে উপস্থিত ছিলেন- পরিষদের আহ্বায়ক এড. কুদরত-ই-খুদা, যুগ্ম আহ্বায়ক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি), কেন্দ্রীয় উপদেষ্টাম-লীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আ ফ ম মহসিন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির খুলনা জেলা সভাপতি ডা. মনোজ দাশ, পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ খুলনা জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নান্টু প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর