× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার

ধর্ষণ মহামারী রূপ নিয়েছে: রাশেদ খাঁন মেনন

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে | ১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৮:০৪

বাংলাদেশের ওয়াকার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খাঁন মেনন এমপি বলেছেন, আজকে ছাত্র আন্দোলনের অনেকখানি অবক্ষয় হয়েছে। ছাত্র আন্দোলনের মধ্যে ক্ষমতার লোভ ঢুকছে। ভোগবাদিতা ঢুকেছে। এটা তাদের দোষ নয়। এটা রাজনৈতিক দোষ। তিনি শনিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ সঙ্গীতাঙ্গন মিলনায়তনে বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী জেলা শাখার ১৫তম জেলা কাউন্সিলে ভার্চুয়াল কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, রাজনীতির মধ্যে যখন দুর্বৃত্তায়ন ঘটে, সাম্প্রদায়িকতা ঘটে। তখন ছাত্র তরুণ সমাজের মধ্যে এমন ঘটনা ঘটবে খুবই স্বাভাবিক।
যখন দেশে দুর্বৃত্তায়ন ঘটে চলেছে। বিচার হীনতার সংস্কৃতি প্রবল ভাবে উস্কে উঠেছে, ধর্ষণ মহামারী রূপ নিয়েছে। তখন ছাত্ররাই এগিয়ে এসে লড়াই শুরু করেছে। তারা অনেক বেশি সাহসি লড়াই করছে। জেলা ছাত্রমৈত্রীর আহবায়ক মুহয়ী শারদ’র সভাপতিত্বে ও সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক ফাহিম মুনতাছির এর সঞ্চালনায় কাউন্সিলের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি ফারুক আহমেদ রুবেল। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এডভোকেট আকসির এম চৌধুরী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন এডভোকেট কাজী মাসুদ আহামেদ, সাধারন সম্পাদক আবু সাঈদ খান, জেলা শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক তারিকুল ইসলাম, রাজনৈতিক শিক্ষা ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক ইয়াতুননেছা রুমা, কেন্দ্রীয় ছাত্র মৈত্রীর সাবেক সভাপতি ফরহাদুল ইসলাম পারভেজ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক সানিউর রহমান। উদ্বোধনী সমাবেশ শেষে ফাহিম মুনতাসিরকে সভাপতি, সানিউর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক ও জুবায়েদ আহমেদ সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠন করা হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
z Ahmed
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ১০:১২

Only nice statements won't solve the problem. Establishment of law, order, judgement and true democracy are the solutions. No other short-cut way.

Banglar Manush
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৯:৩২

And, you were one of their ministers. This time you did not get the minister post, that's why you are talking aginst them. Shame on you!

অন্যান্য খবর