× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার

রায়হানের শরীরে ১১১ আঘাতের চিহ্ন

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৯:৫৯

সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে নিহত রায়হান উদ্দিনের শরীরে ১১১টি আঘাতের চিহ্ন উঠে এসেছে ফরেনসিক রিপোর্টে। এসব আঘাতের ৯৭টি লীলাফোল আঘাত ও ১৪টি ছিল জখমের চিহ্ন।

আজ শনিবার সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. শামসুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, রিপোর্টটি পিবিআই’র কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রোববার সকাল ৭ টা ৫০ মিনিটে রায়হানের মৃত্যু হয়েছে। আঘাতগুলো লাঠি দ্বারাই করা হয়েছে। আর অতিরিক্ত আঘাতের কারণে দেহের ভেতর রগ ফেটে গিয়ে রক্তক্ষরণে রায়হানের মৃত্যু হয়। আঘাতে দেহের মাংস থেতলে যায়। রগ ফেটে গিয়ে আন্তঃদেহে রক্তক্ষরণ (ইন্টারনাল ব্লিডিং) হয়। আর অতিরিক্ত আঘাতে মুর্ছা যান রায়হান।

প্রসঙ্গত, ১১ই অক্টোবর রোববার ভোর রাতে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতন করে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মোঃ জিলন
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ২:০২

সব থানায় খুজ নিয়ে দেখেন রেজাল্ট একই। আমার মতে প্রত্যেক থানার এস.আই এবং ওসি সবাইকে নজরদারীতে রাখলে ঠিক হয়ে যাবে।

nasir uddin
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ১২:০১

stalinism?

নসই
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৯:৪৮

কিছু কিছু পুলিশকে মৃত্যুদন্ড দিয়ে কায্কর করলে অনেক অসাধু পুলিশ আর এভাবে করতো না

মোঃ জহিরুল ইসলাম
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ৯:৪২

আইনের রক্ষকরাই যদি জঘন্যতম কাজ করে, তাহলে জনগণের করের টাকায় তাদের রাখার প্রয়োজন আছেকি।

milon
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ৯:৩৫

WHERE IS AKBER ?WHAT TO DO STATE AND GOVERNMENT? LOOK AT THE NEWS GOVERNMENT + WHERE IS ALL AWAMILIG LIDER C...C..C....মা হারিয়েছে সন্তান, স্ত্রী হারিয়েছে স্বামী, সন্তান হারিয়েছে বাবা, পুরো পরিবার হারিয়েছে প্রিয়জনকে, একজন যুবক অকালে ঝড়ে গেল, আর শুধু পুলিশদেরকে অপরাধী না বানিয়ে বরখাস্ত করা হয়েছে ,? কেন ওদের রিমান্ডে নেয়া হয় না ? কেন কইফিয়াট তলব করা হয় না ! সামান্য অপরাধে অপরাধী মনে করে জীবন্ত কবর দেয়া হলো একজন যুবককে ? Again c.c.

AJM SALEK
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ৭:০৩

What a brutality! I can't think of it. Allah (SWT) will definitely take care of it.

hunted
১৮ অক্টোবর ২০২০, রবিবার, ৫:৪৩

This police showed the promise of one of many future IGP.

Shwapnohin
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ১১:৪৪

Allah

Siddq
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ১১:১০

Police did not do it. Bangladeshi police are nothing but jonogon's friend. God where are you?

Dr. Md Abdur Rahman
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ১১:২৯

Law should take its own couse but very quickly.

আনিস উল হক
১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার, ১০:১৮

"লীলাফোলা " না "নীলাফোলা" লেখা যেতে পারে। যা হোল শরীরের চামড়ার নীচে আঘাতের কারণে ঘটা রক্তক্ষরণ।চামড়ার উপরে তা নীল বর্ণের দেখায় -- Bluish tissue injury.

অন্যান্য খবর