× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার

৭০ ধারা সংসদীয় সরকার ব্যবস্থাকে বিকলাঙ্গ করেছে : জি এম কাদের

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৬:০৩

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, সংবিধানের ৭০ ধারা সংসদীয় সরকার ব্যবস্থাকে বিকলাঙ্গ করেছে। ৭০ ধারার কারণে সংসদ সদস্যরা দলীয় সিদ্ধান্তের বিপক্ষে ভোট দিতে পারেনা। আর এ কারণেই সংসদে এক নায়কতন্ত্র বা স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়। ৯০ সালে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তিন জোটের রুপরেখা অনুযায়ী ক্ষমতা হস্থান্তর করেন। কিন্তু ৯১ সালে তিন জোটের রুপরেখা অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার ব্যবস্থা পরিবর্তন করে সংসদীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার নামে দেশে প্রাতিষ্ঠানিক স্বৈরতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
আজ দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিস মিলনায়তনে জাতীয় শ্রমিক পার্টির যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জি এম কাদের একথা বলেন। জাপা বাংলাদেশের সব চেয়ে সম্ভাবনাময় রাজনৈতিক শক্তি দাবি করে জি এম কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকে যেমন উন্নয়ন করেছে, ঠিক তেমনি বিভিন্ন কর্মকান্ডে সাধারণ মানুষের মনে কষ্ট দিয়েছে। দেশের মানুষ উন্নয়নের কথা বেশি দিন মনে রাখেনা কিন্তু কষ্টের কথা দীর্ঘদিন মনে রাখে।

এসময় জাতীয় পার্টি মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি তৈরী হয়েছে। তাই অপরাধ প্রবণতা রোধ করতে পারছেনা সরকার। তিনি বলেন, প্রকৃত অপরাধীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছে। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনামলে অপরাধীদের বিচার হয়েছে। প্রমাণ হয়েছে শুধু জাতীয় পার্টিই দেশে উন্নয়ন এবং সুশাসন দিতে পারে।
এসময় বক্তব্য রাখেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য মো.  আজম খান, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব এ্যাড. মো. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) আব্দুস সালাম, আহসান আদেলুর রহমান এমপি, যুগ্ম মহাসচিব মো. বেলাল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হেলাল উদ্দিন, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এম. এ. রাজ্জাক খাঁন, যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ আলম।
মতবিনিমিয় সভায় সভাপতিত্ব করেন- জাতীয় শ্রমিক পার্টির সভাপতি একেএম আসরাফুজ্জামান, সভা পরিচালনা করেন- জাতীয় শ্রমিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন ও সহ সাধারণ সম্পাদক শেখ মুহাম্মদ শান্ত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর