× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

আমতলীতে উপজেলা পরিষদের পুকুরের মাছ চুরির বিচার দাবি

বাংলারজমিন

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি | ২০ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:২৯

বরগুনার আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের  নির্দেশে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোসা: তামান্না আফরোজ মনির নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ পুকুর থেকে মাছ চুরির ঘটনায় বিচার দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সাত ইউপি চেয়ারম্যান  ও উপজেলা পরিষদ সদস্যরা এ সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আমতলী উপজেলা পরিষদ সদস্য ও আমতলী  সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা। তিনি লিখিত বক্তব্যে  বলেন, আমতলী উপজেলা পরিষদ ভবনের পিছনের  পুকুরে উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে মাছ চাষ করা হয়। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম সরোয়ার ফোরকানের নির্দেশে মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যান তামান্না আফরোজ মনির নেতৃত্বে তার ভাই মতিয়ার রহমানসহ ১০-১২ জন লোক জাল ফেলে ওই পুকুরে মাছ শিকার করে।
মাছ চুরির খবর পেয়ে আমতলী থানার এসআই দাদন মিয়া ঘটনাস্থল থেকে মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যান  মোসা: তামান্না আফরোজ মনি ও জেলেসহ তার সহযোগী ১০-১২ জন লোক আটক করে। খবর পেয়ে ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান ও আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। পরে ইউএনও আসাদুজ্জামান এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের আশ্বাস দিয়ে মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যানসহ তার সহযোগীদের ছেড়ে দেন। এ ঘটনার পাঁচ দিন পেরিয়ে গেলেও ইউএনও ও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাদের বিরুদ্ধে কোন কার্যকরী ব্যবস্থা নেয়নি।
দ্রুত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবীতে মঙ্গলবার আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে  সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সাত ইউপি চেয়ারম্যান ও তিনজন উপজেলা পরিষদ সদস্য।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরো বলেন, প্রশাসন  তাদের বিরুদ্ধে  কার্যকরী ব্যবস্থা না নিলে  উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম সরোয়ার ফোরকান, ভাইস চেয়ারম্যান মোসা: তামান্না আফরোজ মনি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. মজিবুর রহমান, চাওড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. আখতারুজ্জামান বাদল খান, কুকুয়া ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন মাসুম তালুকদার, আড়পাঙ্গাশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) মজিবুন্নেছা, উপজেলা পরিষদ সদস্য নাজমুল নাহার বেগম ও নাজমুন্নাহার আক্তার।
উপজেলা মহিলা  ভাইস চেয়ারম্যান মোসা তামান্না আফরোজ মনি মাছ চুরির ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, ইউএনও আসাদুজ্জামান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ গোলাম সরোয়ার ফোরকানের সিদ্ধান্ত মতে রাতে জেলে নিয়ে মাছ ধরতে গিয়েছিলাম।
আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে দ্রুত  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
আমতলী উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ছরোয়ার ফোরকান চুরির ঘটনা অস্বীকার করে বলেন, উপজেলা পরিষদের পুকুরে মাছ শিকারের কথা ইউএনও নিজেও জানেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর