× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

গৌরীপুরে শুভ্র হত্যায় মেয়র ও চেয়ারম্যানসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ থেকে | ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার, ৮:৩৪

গৌরীপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পল্লী উন্নয়ন বোর্ড বিআরডিবি’র চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান শুভ্র হত্যা মামলায় পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম ও বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদসহ ১৪ জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত সোমবার রাতে এই মামলাটি দায়ের করেছেন নিহত শুভ্রর সহোদর আবিদুর রহমান। এদিকে, ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকেই খুন হয়েছেন ময়মনসিংহের গৌরীপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মাসুদুর রহমান শুভ্র। এর সঙ্গে ছিল নিজের ও দলীয় জনপ্রিয়তার ঈর্ষা। আর তাই পথের কাঁটা সরাতে প্রতিপক্ষ বর্তমান পৌর মেয়র  সৈয়দ রফিকুল ইসলাম কাজে লাগান শুভ্রর ব্যক্তিগত শত্রু আটক বিএনপি নেতা ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ ও তার সহযোগীদের। এই অভিযোগ পরিবার, স্বজন ও দলের নেতাকর্মীসহ গৌরীপুরের নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের। গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিন মামলা দায়েরের খবর নিশ্চিত করে বলেন, এই মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদসহ ৪ জনকে পুলিশ ঘটনার পর পরই গ্রেপ্তার করেছে। পৌর  মেয়র রফিকুল ইসলামসহ অন্যরা পলাতক রয়েছে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, গত শনিবার রাতে গৌরীপুর পৌর এলাকার মধ্যবাজারে কয়েক সহযোগী নিয়ে চা খাচ্ছিলেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পল্লী উন্নয়ন বোর্ড-বিআরডিবির স্থানীয় চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান শুভ্র। এ সময় বিএনপি নেতা ও মইলাকান্দা ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদের নেতৃত্বে ১০-১২ জনের একদল সন্ত্রাসীর হামলায় পাশের একটি ফার্মেসিতে খুন হন শুভ্র। পরিবার ও স্বজনদের অভিযোগ, গৌরীপুর পৌরসভার আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী ছিলেন শুভ্র। মেয়র প্রার্থী শুভ্রর জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে পথের কাঁটা সরাতেই ব্যক্তিগত শত্রু ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদ ও ভাড়া করা সন্ত্রাসী দিয়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটায় নব্য আওয়ামী লীগ নেতা পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম। এদিকে শুভ্র হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত নন বলে দাবি করেছেন পৌর মেয়র সৈয়দ রফিকুল ইসলাম বলেন, একটি মহল রাজনৈতিকভাবে তাকে হেয় প্রতিপন্ন ও কোণঠাসা করতেই এই ধরনের অপপ্রচারে নেমেছে। তিনি আরো জানান, মাসুদুর রহমান শুভ্রর সঙ্গে তার কোনো রাজনৈতিক বিরোধ ছিল না কখনো।
এ বিষয়ে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার আহমার উজ্জামান জানান, শুভ্র হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিএনপি নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াদসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিলিং মিশনে আর কারা কারা ছিল সেটিও পুলিশের কাছে এখন পরিষ্কার। ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকেই এই হত্যাকাণ্ড বলে মনে করছে পুলিশ। তবে এর সঙ্গে অন্য কোনো ইস্যু আছে কী না সেটিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর