× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার

মৌলভীবাজারে ভুয়া মামলার বাদী জেল হাজতে

বাংলারজমিন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি | ২১ অক্টোবর ২০২০, বুধবার, ৮:৪৫

আদালতকে বিভ্রান্তি করার চেষ্টা প্রতারণা ও জাল জালিয়াতির অভিযোগে বাদীকেই জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত। গতকাল (মঙ্গলবার) মৌলভীবাজার ৩ নং আমল গ্রহণকারী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত এর বিচারক মুহম্মদ আলী আহসান এ আদেশ দেন।
আদালত সূত্রে জানা যায় যে, মো. হাবিবুর রহমান সিআর-২২০/২০২০ (কমলগঞ্জ) নং মামলার বাদী। আজ মামলাটির তারিখ ধার্য ছিল। শুনানি চলাকালে আসামিপক্ষের আইনজীবী দাবি করেন যে, মিথ্যা অভিযোগ ও জাল কাগজাদি তৈরি করে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে এবং বাদীপক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য নন এবং ভুয়া।
এতে বিচারকের সন্দেহ হলে এবং বাদীপক্ষে কোনো আইনজীবী আদালতে উপস্থিত না থাকায় বাদীপক্ষের নালিশা দরখাস্তে বর্ণিত আইনজীবীর একই নামীয় মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির দুইজন সদস্যকে আদালতে তলব করা হয়।
আইনজীবীরা আদালতে উপস্থিত হয়ে জানান যে, তারা কেউই এই মামলায় বাদীপক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী নন এবং নালিশা দরখাস্তে প্রদত্ত স্বাক্ষর তাদের কারো নয় এবং তারা ন্যায় বিচারের স্বার্থে অত্র জালিয়াতি চক্রের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন করেন।
কাঠগড়ায় উপস্থিত মামলার বাদী মো. হাবিবুর রহমান জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেন যে, মৌলভীবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য এডভোকেট মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিনের মাধ্যমে চুক্তিনামা তৈরি করে প্রতারণা ও হয়রানি করার উদ্দেশে বর্ণিত মামলাটি দায়ের করেন।
তিনি অভিযুক্তদের চিনেন না এবং বিদেশ যাওয়ার বিষয়ে কোনো টাকা পয়সার লেনদেন ও চুক্তি হয় নাই।
পরে আদালত ক্ষোভ প্রকাশ করে মামলা খারিজ করে দেন। অভিযুক্তদের অব্যাহতি প্রদান করেন। এবং আদালতকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা ও প্রতারণা ও জাল জালিয়াতির অভিযোগে মো. হাবিবুর রহমানকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
আদালত জানান, বাদী মো. হাবিবুর রহমান ও এডভোকেট মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন পরস্পর যোগসাজশে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে সিআর-২২৪/২০২০ (কমলগঞ্জ) মামলায় উল্লিখিত অভিযুক্তদের হয়রানির উদ্দেশে মিথ্যা মামলা আনয়ন করে আদালতের সময় নষ্টসহ বিচারিক কার্যক্রমে ব্যাঘাত সৃষ্টি করেছেন যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর