× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৩০ নভেম্বর ২০২০, সোমবার

সন্তানকে পুলিশের গাড়িতে তুলে দিলেন মা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৮:৫০

মোটরসাইকেল চুরির দায়ে নিজ সন্তানকে ধরে পুলিশের গাড়িতে তুলে দিলেন মা পারভিন আক্তার। এমন ঘটনা ঘটেছে চট্টগ্রামের কোতোয়ালি থানার আসকর দীঘির পাড় এলাকায়। আর তথ্যটি জানিয়েছেন কোতোয়ালি থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন। তিনি বলেন, আমরা হতভম্ব। যেখানে মায়ের বিবেকের কাছে হেরে গেছে তার আবেগ। বিবেকের মূল্যায়ন পরাজিত করেছে ছেলের অন্ধ আবেগের আস্ফালনকে। এমন মায়ের প্রতি টিম কোতোয়ালির থানার পক্ষ থেকে বিনম্র শ্রদ্ধা আর অফুরন্ত ভালোবাসা। তিনি বলেন, ঘটনার শুরু গত শনিবার সন্ধ্যার পর।
জনৈক মোহাম্মদ আশফাক হোসেন তাহার ব্যক্তিগত মোটরসাইকেলটি রিয়াজউদ্দিন বাজার তামাকুমুন্ডি লেইনের বিপরীত পাশে পার্ক করে যান মোবাইল মেরামত করতে। এ সময় তিনি মোটরসাইকেলটি তালাও মেরে যান। কিন্তু কিছুক্ষণ পর এসে দেখেন তাহার মোটরসাইকেলটি নেই। ব্যতিব্যস্ত হয়ে অনেক খোঁজাখুঁজির পর জানতে পারেন এক যুবক তার নিজের মোটরসাইকেল বলে তা রিকসায় উঠিয়ে নিয়ে গেছে। হতভম্ব হয়ে আশফাক হোসেন তাৎক্ষণিকভাবে ছুটে যান টিম কোতোয়ালির টহল দলের কাছে। আশফাক হোসেনের কাছে পুরো ঘটনা শুনে টহল টিমের দায়িত্বে থাকা এসআই মো. মনজুরুল আলম ভূঁইয়া কালবিলম্ব না করে অভিযান শুরু করেন। অভিযানের একপর্যায়ে পুলিশকে এক প্রত্যক্ষদর্শী জানায় কিছুক্ষণ আগে এক যুবক একটি মোটরসাইকেলকে রিকশায় করে নগরের আসকার দীঘির পাড় এলাকায় নিয়ে যেতে দেখেছেন। এ সংবাদে অভিযানে নতুন মাত্রা আসে। টহল টিমটি ছুটে যায় আসকার দীঘির দক্ষিণ পাড়ে। সামান্য খোঁজা করতেই পাওয়া যায় চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল। এ সময় ঘটে অভূতপূর্ব এক ঘটনা। মোটরসাইকেল উদ্ধারের পর তুহিন ভুঁইয়া নামক ওই যুবককে আমরা খোঁজ করতে থাকি। এ সময় সে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু নিজ ছেলের অপরাধের কথা জানতে পেরে মা পারভিন আক্তার নিজেই স্থানীয়দের সহায়তা নিয়ে তাকে পালাতে দেননি এবং টহল পুলিশকে সহায়তা করে নিজেই নিজ সন্তানকে পুলিশের গাড়িতে উঠিয়ে দিয়ে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। যা এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর