× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার
রয়টার্সের প্রতিবেদন

ফেসবুকে ইসলামবিদ্বেষী কন্টেন্ট নিষিদ্ধের আহ্বান ইমরানের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ২:৪৭

ইসলামবিদ্বেষী কনটেন্ট ফেসবুকে নিষিদ্ধ করতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। রোববার এক খোলা চিঠিতে তিনি এ আহ্বান জানান। এর আগে তিনি ইসলামকে আক্রমণ করার জন্য ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের কড়া সমালোচনা করেন। এর কয়েক ঘন্টা পরেই তিনি ওই খোলা চিঠিতে দাবি করেন, ফেসবুকে ইসলামবিদ্বেষী লেখা থাকলে তা মুসলিমদের মধ্যে উগ্রবাদকে উস্কে দেবে। ক্রমবর্ধমান ইসলামবিদ্বেষ চরমপন্থাকে উৎসাহিত করে। তাতে বিশ্বজুড়ে সহিংসতা দেখা দেয়। বিশেষ করে এসব কনটেন্ট প্রচারের একটি মাধ্যম ফেসবুক। ইমরান খান লিখেছেন, হলোকাস্ট ইস্যুতে আপনারা যেমন ফেসবুকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন সেই একই রকমভাবে ইসলাবিদ্বেষ এবং ইসলামের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়িয়ে দেয়া বন্ধে পদক্ষেপ আশা করি।

এখানে উল্লেখ্য, এ মাসে ফেসবুক বলেছে, তারা ঘৃণা ছড়িয়ে দেয় এমন কন্টেন্টের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা নীতি আধুনিকায়ন করছে। এর মধ্যে হলোকাস্টকে প্রত্যাখ্যান করে বা বিকৃত করে এমন বিষয়কে নিষিদ্ধ করার কথা। সেই পদক্ষেপের উল্লেখ করেছেন ইমরান খান। তিনি বলেছেন, এক গ্রুপের কাছে অগ্রহণযোহগ্য অথবা অন্যদের কাছে গ্রহণযোগ্য- এমন ঘৃণাপ্রসূত ম্যাসেজ কেউ পোস্ট করতে পারে না। ইমরান বলেন, এমন পক্ষপাতমূলক অবস্থান উগ্রবাদকে আরো উৎসাহিত করবে। জবাবে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেছেন, ফেসবুক সব রকম ঘৃণার বিরোধী। জাতি, বর্ণ, জাতীয়তা অথবা ধর্ম- কোনো কিছুর বিরুদ্ধে আক্রমণ করাকে অনুমোদন করে না ফেসবুক। তিনি আরো বলেন, যখনই আমরা এমন কন্টেন্টের বিষয় পাবো ফেসবুকে, তখনই এ জাতীয় ঘৃণাপ্রসূত বক্তব্য মুছে ফেলবো। এ জন্য ফেসবুককে অনেক কাজ করতে হবে।
২০১৯ সালের ডিসেম্বর থেকে ৬ মাস পর্যন্ত ফেসবুকের স্বচ্ছতা বিষয়ক রিপোর্ট বলছে, এমন অনুরোধের দিক থেকে রাশিয়ার পরেই পাকিস্তানের অবস্থান। তারা বিভিন্ন রকম কন্টেন্ট মুছে দেয়ার অনুরোধের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে। পাকিস্তান থেকে ইসলাম সংশ্লিষ্ট কন্টেন্ট মুছে দেয়ার অনুরোধ গেছে ফেসবুকে বেশি।
ফেসবুকের কাছে পাঠানো চিঠিতে ইমরান খান ফ্রান্স পরিস্থিতি তুলে ধরেছেন। তিনি দাবি করেন, সেখানে সন্ত্রাসের সঙ্গে ইসলামকে যুক্ত করে ফেলা হচ্ছে। এর আগে ইমরান খান বলেন, ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন মুসলিমদের প্রাণের চেয়েও প্রিয় মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনকে উৎসাহিত করে ইসলামের বিরুদ্ধে আক্রমণ করেছেন। ফরাসি যে শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে মহানবী (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে শিক্ষা দিচ্ছিলেন, তার প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশ করেছেন ম্যাক্রন। ম্যাক্রন বলেছেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতার অধীনে ওই শিক্ষক ব্যঙ্গচিত্র ব্যবহার করেছেন। উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে এ কারণে ওই শিক্ষকের শিরñেদ করেছে এক চেচেন যুবক। এরপর সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে চলে গিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়্যিপ এরদোগান। তিনি ইমানুয়েল ম্যাক্রনের মানসিক চিকিৎসার আহ্বান জানিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর