× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ নভেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

ইরফান সেলিমের ১ বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৭:২০

সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছেলে ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। আজ সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত জানিয়েছেন র‌্যাবের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ।

তিনি জানান, অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ছয় মাস ও অবৈধ মাদক রাখার দায়ে ছয় মাস করে মোট এক বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে দু’জনকে। এর আগে দুপুরে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে এরফান সেলিমের বাসায় অভিযান শুরু করে র‌্যাব। অভিযানে ৩৮টি ওয়াকিটকি, পাঁচটি ভিপিএস সেট, অস্ত্রসহ একটি পিস্তল, একটি একনলা বন্দুক, একটি ব্রিফকেস, একটি হ্যান্ডকাফ, একটি ড্রোন এবং সাত বোতল বিদেশি মদ ও বিয়ার জব্দ করা হয়।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে এরফান সেলিম জানিয়েছেন, এসব ওয়াকিটকির মাধ্যমে তিনি তার বাসার আশপাশের পাঁচ থেকে ১২ কিলোমিটারের মধ্যে থাকা নেতাকর্মী ও অনুসারীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন। ইরফান সেলিমের ভিপিএস সেটগুলোকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ডিটেক করতে পারত না। তার বাসার চার ও পাঁচতলার কন্ট্রোল রুম থেকে এসব উদ্ধার করা হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম সাংবাদিকদের জানান, এরফান সেলিমের অস্ত্র দুটির কোনো লাইসেন্স ছিল না। এসব অস্ত্র ও হ্যান্ডকাফের বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। এগুলো দিয়ে তিনি সাধারণ মানুষকে ভয়ভীতি দেখাতেন।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মিজানুল হক
২৭ অক্টোবর ২০২০, মঙ্গলবার, ১২:২৩

গুরুপাপে লঘুদন্ড ম্যাংগো পিপল হতভম্ব।

Zahedul Haque
২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৩:০৯

এদের বিরুদ্ধে কি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কারনে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হবে? কারণ রাষ্ট্রদ্রোহের সকল উপকরন সেলিম পুত্রের নিকট পাওয়া গেছে।

Adv.N.I.Bhiuyan
২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৮:১৪

বিষয়টি বুঝতে একটু কষ্ট হচ্ছে,অবৈধ অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে দুটি পৃথক মামলা না করে ভ্রাম্যমান আদালতের সাজা কেন দেয়া হল এটা কি অপরাধীকে লঘু দন্ড দেয়ার ও জনগণকে বোকা বানানোর কৌশল কিনা

Khokon
২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৭:৫৪

হাস্য কর জাজমেন্ট ? অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ৬ মাস এবং অবৈধ মদ, ইয়াবা রাখার দায়ে ৬ মাস মোট একবছর ? জানিনা দেশের আইনে কি লেখা আছে ? আগে শুনতাম অবৈধ অস্ত্র রাখার দায় নিম্নে ১০ বছর জেলে ও জরিপানা হতে পারে ! এখন দেখছি ৬ মাস তাও বিনা জিজ্ঞাসা বাদে, বিনা রিমান্ডে ? আসামির তো এর বেশিও অস্ত্র থাকতে পারে ? আর এটা যদি এতো সহজ উপায় বিচার হয়, তাহলে পাবলিক (চোর, গুন্ডা, মাস্তান) অস্ত্রের লাইসেন্স না করে ঘরে রাখবে, চুরি করবে, ডাকাতি করবে, সন্ত্রাসী করবে, মন্ত্রীদের আঘাত করবে, চাঁদাবাজি টেন্ডারবাজি, বড় বড় অফিসারদের রাস্তা ঘাটে মারবে এবং ধরা পড়ে ৬ মাস জেল খেটে আবার বাহিরে এসে একই কাজ করবে ? নায্য বিচার ! এভাবে দেশ কতদিন চলবে ? বিচারকে কি মাথা ঠিক আছে ? না শুধু নাম দেখানো বিচার করেছেন ? দেশটা এভাবেই দিন দিন রসাতলে যাচ্ছে ?

Nasir Uddin Ahmed
২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার, ৭:৪৯

Only 01 year for keeping illegal arms and drugs.

অন্যান্য খবর