× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

চৌদ্দগ্রামে স্ত্রীকে হত্যার দু’দিন পর স্বামীর আত্মহত্যা

বাংলারজমিন

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি | ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৮:৪১

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে স্ত্রীকে হত্যা করার দু’দিন পরই ঘাতক স্বামী হেলাল উদ্দিন বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। গতকাল দুপুরে উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জশ্রীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। হেলাল উদ্দিন ওই গ্রামের মৃত ছিদ্দিকুর রহমানের পুত্র।
জানা গেছে, গত সোমবার হেলাল উদ্দিনের স্ত্রী এক সন্তানের জননী দিলোয়ারা আক্তার শিউলীর ঝুলন্ত লাশ চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ তার ঘর থেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় শিউলীর পিতা ফয়েজ আহাম্মদ স্বামী হেলাল উদ্দিন ও তার ভাই-মা এবং ভাবীসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনার পর থেকে হেলাল উদ্দিনসহ পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়। গতকাল সকালে হেলাল তার পরিবারের সদস্যদের চোখের আড়ালে নিজ বাড়িতেই বিষপানে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে পরিবারের লোকজন তাকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত ডাক্তার আবুল হাশেম সবুজ জানান, ‘হেলাল উদ্দিনকে মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তার মুখে ও শরীরে বিষের অস্তিত্ব পাওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।’
এ ব্যাপারে চৌদ্দগ্রাম থানার সেকেন্ড অফিসার মনির হোসেন বলেন, ‘মৃত হেলাল উদ্দিন তার স্ত্রী শিউলীকে হত্যার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামি। সে বিষপান করলে পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে চৌদ্দগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লায় নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর