× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

রায়হান হত্যা: আরেক পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১:৫৪

রায়হান হত্যা মামলায় সিলেট বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির প্রত্যাহারকৃত এএসআই আশেক এলাহীকে গ্রেপ্তার করেছে মামলার তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।  বুধবার রাতে পিবিআই’র একটি দল পুলিশ লাইন্স থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

রায়হান হত্যাকাণ্ডের পর এএসআই আশেক এলাহীসহ তিন পুলিশ সদস্যকে বন্দরবাজার ফাঁড়ি থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছিল। আর ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবরসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

গত ১২ই অক্টোবর সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে নগরীর নেহারীপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান আহমদকে গুরুতর আহতাবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন এএসআই আশেক এলাহী। প্রায় এক ঘণ্টা পর সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে হাসপাতালে মারা যান রায়হান।

পিবিআই সূত্র জানায়, এএসআই আশেকে এলাহীকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে। এর আগে একই ঘটনায় কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস ও কনস্টেবল হারুনুর রশিদকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নেয় পিবিআই।

পিবিআই সিলেটের পুলিশ সুপার মো. খালেদুজ্জামান জানান, এএসআই আশেক এলাহী পুলিশ লাইন্সে থাকলেও সে পিবিআই’র নজরদারিতে ছিল। বুধবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
তিনি বলেন, পিবিআই ধাপে ধাপে কাজ করে যাচ্ছে। লাপাত্তা হওয়া এসআই আকবরকে ধরতে পিবিআই-এর একাধিক টিম কাজ করে যাচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মিজানুল হক
২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৬:৫৭

মোড়লের খবর নাই উলুখাগরার হায় হায়।

Md. Harun al-Rashid
২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ২:২১

নিজেরাই কপালে 'জনগনের বন্ধু' সেঁটে এমন নির্মমতা করে যাচ্ছে। প্রতিটি নির্মম ঘটনাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে উড়িয়ে দেয়ায় আজ একটা ঐতিহ্যবাহী বাহিনীর ভাবমূর্তি এতোটা ছিন্নভিন্ন। অপেক্ষায় থাকি কখন জনগন বলবে পুলিশ জনগনের বন্ধু-সেদিনই কেবল পুলিশ বন্ধু হয়ে উঠবে।

অন্যান্য খবর