× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার
কলকাতা কথকতা

বাংলার নির্বাচনে উত্তর প্রদেশের মডেল, পঞ্চপান্ডবকে নিয়োগ অমিত শাহের

কলকাতা কথকতা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা
(২ মাস আগে) নভেম্বর ১৭, ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:৪৪ পূর্বাহ্ন

পশ্চিমবঙ্গে দখল করতে ঝাঁপিয়ে পড়লো  বিজেপি। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপির অঘোষিত নম্বর টু অমিত শাহের নির্দেশে উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা ভোট জেতার ফর্মুলা নেয়া হল বাংলাতেও।  মঙ্গলবারই এই মডেল ঘোষিত হল।  এই মডেল অনুযায়ী গোটা বাংলাকে পাঁচটি জোনে ভাগ করা হচ্ছে।  কলকাতা,  উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা নিয়ে একটি  জোন,  দ্বিতীয় জোনে আছে দুই মেদিনীপুর,  হাওড়া এবং হুগলি,  তৃতীয় জোনে জঙ্গলমহলের সবকটি জেলা,  চতুর্থ জোনে মুর্শিদাবাদ,  দুই বর্ধমান,  বীরভূম এবং নদিয়া। পঞ্চম জোনটি গোটা উত্তরবঙ্গ।  রাজ্য স্তরের কোনও নেতা নয় পাঁচটি জোনের দায়িত্ব পাচ্ছেন অমিত শাহের পরীক্ষিত পঞ্চপান্ডব পাঁচ কেন্দ্রীয় নেতা,  এঁরা হলেন - সুনীল দেওধার,  দুস্মন্ত গৌতম,  বিনোদ শোনকার,  হরিশ দ্বিবেদী ও বিনোদ ট্যান্ডারে।  এঁরা বিভিন্ন ভোটে সাফল্য পেয়েছেন।  তাই,  এক একটা জোনের দায়িত্বে তাঁরাই।  এঁদের মধ্যে সুনীল দেওধার ত্রিপুরায় বিজেপিকে আনতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেন। ২০১৪ তে মোদির সাফল্যে ভূমিকা ছিল হরিশ দ্বিবেদী ও বিনোদ ট্যান্ডারের।  উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথের সাফল্যের অংশীদার বিনোদ শোনকার ও দুস্মন্ত গৌতম।  তাই,  এঁদেরই দায়িত্ব দিচ্ছেন বঙ্গবিজয়ে মরীয়া অমিত শাহ।  অমিত নিজেও ফের কলকাতায় আসছেন।  সম্ভবত তিরিশ নভেম্বর।  উত্তরবঙ্গ,  বাঁকুড়া ও কলকাতায় সাংগঠনিক বৈঠক করবেন তিনি।   ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
এটিএম তোহা
১৭ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:১০

ভারতে চলছে কট্টর হিন্দুত্ববাদী ধর্মীয় উম্মাদনা। গনতন্ত্র সেখানে ধর্মের আড়ালে ঠাঁই নিয়েছে। সুতরাং মোদীর দলই ভারতে ক্ষমতায় থাকবে এটা নিশ্চিত। আর কোনদিন ভারতে ধর্ম নিরপেক্ষ সরকার আসবেনা নিশ্চিত থাকুন।

অন্যান্য খবর