× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৫ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার

সরাইল পিডিবি’র কাজে নিম্নমানের সামগ্রী

বাংলারজমিন

সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি
২১ নভেম্বর ২০২০, শনিবার

 সরাইল পিডিবিতে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে ইচ্ছামতো কাজ করছেন ঠিকাদার। ময়লাযুক্ত ৩ নম্বর ইটের দায় দিচ্ছেন নির্বাহী প্রকৌশলীর উপর। নির্বাহী প্রকৌশলীও তা মেনে নিচ্ছেন। তবে কার্যাদেশের নেই এমন কাজ নিম্নমানের ইটা দিয়ে করার কথা জানিয়েছেন তিনি।  লেপফোজ করে ১০ লক্ষাধিক টাকার কাজের বিষয়টি মানতে নারাজ স্থানীয়রা। সরজমিন দেখা যায়, সরাইল পিডিবি’র নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের ভেতরে কাজ চলছে। ১০ লক্ষাধিক টাকার এ কাজটি করছেন মেসার্স রহমান এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। স্তূপ করে রাখা হয়েছে শেওলা ও ময়লাযুক্ত কয়েক হাজার ইটা। সেই ইটা দিয়েই কাজ করছেন ঠিকাদারের লোকজন।
কাজ তদারকি করছেন শেখ মো. রফিক মিয়া নামের এক লোক। রফিক মিয়া ইটগুলি নিম্নমানের তা স্বীকার করে বলেন, কাজের বিষয়ে মূল ঠিকাদার ভাল বলতে পারবো। আমি মূল ঠিকাদার নয়। ইটগুলো আমরা ক্রয় করিনি। নির্বাহী প্রকৌশলী ক্রয় করে এনেছেন। এ সময় উপস্থিত নির্বাহী প্রকৌশলী নওয়াজ আহমেদ খান ইট ক্রয়ের কথা স্বীকার করে বলেন, কার্যাদেশে ইটের কথা নেই। তবুও আমি ঢালাইয়ের নিচের সলিংয়ের জন্য নিজের টাকায় ইটগুলো দিয়েছি। এগুলো তো নিচেই থাকবে। সমস্যা হবে না। অফিসের সামনের ফাঁকা জায়গা সলিং ঢালাই, পাশে শেড তৈরি, দু’টি কলাপসিবল গেইট, প্রধান ফটকের টাইল্‌স ফিটিং ও অফিসের নাম-ঠিকানা সহ অন্যান্য কিছু কাজ হবে। সব মিলিয়ে ১০ লক্ষাধিক টাকার কাজ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর