× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৪ ডিসেম্বর ২০২০, শুক্রবার
ইন্ডিপেন্ডেন্টের রিপোর্ট

ট্রাম্পকে নির্বাচিত হওয়া বন্ধ করেছে ফাইজার, মডার্না!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২১ নভেম্বর ২০২০, শনিবার, ১২:৩৭

করোনা ভাইরাসের টিকা আনতে বিলম্ব করার মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার পথ বন্ধ করেছে ফাইজার এবং মডার্না। এ অভিযোগ আর করো নয়, স্বয়ং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এই অভিযোগ করেছেন। একই সঙ্গে তিনি আবারো ‘ফলস্লি’ দাবি করেছেন নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। ওদিকে জর্জিয়ায় তাকে পরাজিত ঘোষণা করা হয়েছে। মিশিগানের দু’রিপাবলিকান আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। তারপরও বিশ্ব মিডিয়া যখন সংবাদ শিরোনাম করছে, ট্রাম্পের সামনের পথ ক্রমশ সংকীর্ণ হয়ে আসছে, তখনও তিনি দাবি করছেন তিনি বিজয়ী। এ নিয়ে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, শুক্রবার ওষুধের মূল্য কমানো নিয়ে হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলন করেন ট্রাম্প।
সেখানেই তিনি নতুন করে নিজের বিজয় দাবি করেন। তিনি অভিযোগ করেন, করোনা ভাইরাসের টিকার সাফল্য ছাড়া তাকে পরাজিত করার জন্য কিছু ভোট পেতো ডেমোক্রেটরা। তিনি বলেন, বড় বড় ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি তার বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রচারণার সময় নেতিবাচক বিজ্ঞাপন প্রচারে লাখ লাখ ডলার খরচ করেছে। তা সত্ত্বেও আমি জিতেছি। আমরা এই বিজয় ঘরে তুলবো। প্রায় ৭ কোটি ৪০ লাখ ভোট। আমাদের বিরুদ্ধে বড় ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানি, মিডিয়া, বড় প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান কাজ করেছে। আর ছিল আমাদের বিরুদ্ধে প্রচুর অসৎ মানুষ। এরপরই তিনি ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলোর সমালোচনা করেন, যারা করোনা ভাইরাসের টিকার সফলতা সম্পর্কে ঘোষণা দেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাক্কালে। ট্রাম্প বলেন, ফাইজার এবং অন্যরা টিকা আবিষ্কারে এগিয়ে ছিল। আমি যদি আরও চার বছর ক্ষমতায় না থাকি তাহলে আপনাদের টিকা পাওয়া উচিত নয়। ফাইজার ও অন্যরা তাদের টিকার মূল্যায়ন প্রকাশ করেনি। অন্যকথায় বলা যায়, নির্বাচন শেষ হওয়ার পর তারা তাদের টিকার সফলতা সম্পর্কে জানিয়েছে।
তবে নির্বাচনী প্রচারণাকালে ট্রাম্প বার বার বলেছেন, ভোটের পরে ওষুধ কোম্পানিগুলো তাদের টিকা অবমুক্ত করবে। তবে তার এসব উদ্ভট অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ফাইজার ও মডার্না। তারা বলেছে, তাদের টিকার পরীক্ষার সঙ্গে রাজনৈতিক কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। এরই মধ্যে ফাইজারের টিকা শতকরা ৯৫ ভাগ কার্যকর এবং মডার্নার টিকা শতকরা ৯৪.৫ ভাগ কার্যকর বলে পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের অভিযোগ, তিনি ওষুধের বা টিকার মূল্য কমাতে চেয়েছেন। এ জন্য তিনি নির্বাহী আদেশ দেবেন। এ ঘোষণার প্রতিশোধ নিতে তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে এসব ওষুধ প্রস্তুতকারকরা। তিনি আরো দাবি করেন, যদি নির্বাচনের আগে টিকার খবর প্রকাশ পেতো, তাহলে জো বাইডেনকে পরাজিত করতে তার জন্য সহায়ক হতো। তাই এসব প্রতিষ্ঠান অপেক্ষা করেছে তো অপেক্ষা করেছে। অবশেষে নির্বাচন শেষ হওয়ার দু’চার দিনের মধ্যেই তারা তাদের ফল ঘোষণা করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর