× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৪ ডিসেম্বর ২০২০, শুক্রবার

উগ্রপন্থীদের প্রতিহত করতে ফ্রান্সের নতুন নির্দেশপত্র

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২১ নভেম্বর ২০২০, শনিবার, ৫:১৪

ইসলামিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে একটি চার্টার দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। ১৫ দিনের মধ্যে তা গ্রহণ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে আবারো নতুন বিতর্ক শুরু হতে পারে এমন আশঙ্কাও প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে ইসলামপন্থীদের উগ্র মতবাদ প্রচার বন্ধে বেশ কড়াকড়ি শুরু করেছে ম্যাক্রন প্রশাসন।  নতুন ওই নির্দেশপত্রের নাম দেয়া হয়েছে, চার্টার অফ রিপাবলিকান ভ্যালুস। আগামি ১৫ দিনের মধ্যেই ওই নির্দেশনা মানতে হবে দেশটির ইমামদের। একইসঙ্গে তারা যে এই নির্দেশনা মানছেন তাও নিশ্চিত করা হবে। এ খবর দিয়েছে ডয়েচে ভেলে।
খবরে বলা হয়েছে, গত বুধবারই প্যারিসের রাজপ্রাসাদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ফ্রেঞ্চ কাউন্সিল অফ দ্য মুসলিম ফেইথ (সিএফসিএম)-এর কয়েকজন বিশিষ্ট সদস্যকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন ম্যাক্রন। সেখানেই চার্টারের বিভিন্ন পয়েন্ট নিয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হয়।
তারপরেই চার্টারটি প্রকাশ করে মাক্রন সরকার। এতে বলা হয়েছে, মুসলিম নেতা এবং ইমামদের ১৫ দিনের মধ্যে ওই চার্টার গ্রহণ করতে হবে। চার্টার অনুযায়ী, প্রত্যেক ইমামকে এখন থেকে একটি সংশাপত্র বা অ্যাক্রেডিটেশন কার্ড দেওয়া হবে। যাদের কাছে ওই কার্ড থাকবে, তারাই একমাত্র ইমাম হিসেবে কাজ করতে পারবেন। যে কোনো সময় ওই কার্ড কেড়ে নেওয়ার অধিকার থাকবে রাষ্ট্রের। ম্যাক্রন সরকারের বক্তব্য, ইসলামের চরমপন্থী ধারার যে প্রচার দেখা যাচ্ছে তা প্রতিহত করার জন্যই এই ব্যবস্তাগুলি করা হচ্ছে। চার্টারে স্পষ্ট করে বলা আছে, ইসলাম একটি ধর্ম। কিন্তু তা যেন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত না হয়। কেউ যদি তা করার চেষ্টা করেন, তা হলে রাষ্ট্র তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। আরো একটি কথা উল্লেখ করা হয়েছে চার্টারে। বিদেশের প্রভাব থেকে মুক্ত থাকতে হবে ইসলামিক প্রতিষ্ঠানগুলিকে। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, আরব বিশ্ব থেকে ইসলামিক প্রতিষ্ঠানগুলি যে সাহায্য পায়, তার উপর কড়াকড়ি জারি করার জন্যই চার্টারে এই পয়েন্টটি লেখা আছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
এ এইচ ভুঁইয়া
২৬ নভেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৪:৫৯

সমস্যা এখানেই, হিন্দু, মুসলিম, মৌলবাদীরা ধর্মকে রাজনীতিতে টেনে আনছে। ভারত, মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকার বেশ কিছু দেশ। অনেক মুসলিম দেশ সাবধানতা অবলম্বন করছে।

অন্যান্য খবর