× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার

খুলনায় করোনায় আরো একজনের মৃত্যু

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে
২৬ নভেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

খুলনায় করোনা আক্রান্ত হয়ে আরো একজন মারা গেছেন। শীত আসার পর এ নিয়ে খুলনায় করোনায় দু’জনের মৃত্যু হলো। আর এ পর্যন্ত খুলনায় মারা গেছেন ১০৭ জন।
খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, খুলনার করোনা হাসপাতালে গতকাল ভোর ৪টার দিকে জহুরুল হক (৮৫) নামে একজন করোনা রোগী মারা গেছেন। তার বাড়ি মহানগরীর সদর থানার ১৯৮/১ খানজাহান আলী মসজিদ লেন দারোগাপাড়ায়। তিনি করোনা পজেটিভ হয়ে ২০শে নভেম্বর হাসপাতালে ভতি হন।
খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. রাশেদা সুলতানা জানান, খুলনা জেলায় এ পর্যন্ত ৬ হাজার ৮০৯ জনের করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৫২৭ জন এবং মারা গেছেন ১০৬ জন। এদিকে করোনা সংক্রমণরোধে খুলনায় আটক, মামলা ও অর্থদণ্ড করা অব্যাহত রয়েছে। ৯ই নভেম্বর থেকে জেলা প্রশাসনের এ কার্যক্রম শুরু হয়।
এ পর্যন্ত ১৫ দিনে ৩১১ জনকে আটক, ২৯৫টি মামলা এবং দেড় লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। বর্তমানে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক ছাড়া শহরে বের হওয়া সচ্ছল ব্যক্তিদের জরিমানা করে সেই টাকা দিয়ে অসচ্ছল মানুষকে মাস্ক কিনে দেয়া হচ্ছে।

সমপ্রতি করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জিরো ট্রলারেন্স ঘোষণা করেছে খুলনা জেলা প্রশাসন। স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি সবার মাস্ক পরিধানে বাধ্যকরণে কঠোরতা আরোপ করা হয়েছে।
গত ৮ই নভেম্বর করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি ও জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির বৈঠকের পর থেকে নড়েচড়ে বসে খুলনা জেলা প্রশাসন। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৯ই নভেম্বর থেকে নিয়মিত মামলা, আটক, অর্থদণ্ড, মাস্ক বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।
খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (মিডিয়া) দেবাশীষ বসাক বলেন, ‘করোনার প্রকোপ আবারো আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে। অথচ জনসচেতন নেই। এ কারণে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে খুলনা জেলা প্রশাসন জিরো টলারেন্সে রয়েছে। কাউকে কোনো ছাড় দেয়া হচ্ছে না।’
২৪শে নভেম্বর মঙ্গলবার খুলনা মহানগরীসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে ২৪ মামলায় ১৬ হাজার ৯শ’ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। এ অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবিলার প্রস্তুতি হিসেবে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।
খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক জানান, অভিযানকালে কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা মাস্কবিহীন অসংখ্য মানুষকে চলাফেরা করতে দেখেন। এ সব মানুষের কিছু সংখ্যক আর্থিকভাবে সচ্ছল, অথচ মাস্ক পরিধান করেন না। কিছু মানুষ আছেন যারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধানের নিমিত্তে নিয়মিত মাস্ক ক্রয়ের ক্ষমতা রাখেন না। এ রকম পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন, খুলনা এক অনন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে। সচ্ছল অথচ মাস্ক পরার বিধান অমান্যকারী ব্যক্তিদের জরিমানা আরোপ না করে সেই অর্থে মাস্ক ক্রয় করে গরিব-দুঃখী মানুষকে বিতরণ করতে বলা হয়। আইন অমান্যকারী সচ্ছল ব্যক্তিরা নিজ অর্থে মাস্ক ক্রয় করে রিকশাচালক, দিনমজুর, ভিক্ষুকসহ অসহায় গরিব মানুষকে বিতরণ করেন। এছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়স্ক আইন অমান্যকারীর অভিভাবকদের ফোন করে তার পরিবারের সদস্যদের সচেতন হতে এবং মাস্ক পরিধান ব্যতীত বাড়ির বাইরে বের না হওয়া নিশ্চিত করতে যত্নবান হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর