× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার
কুলাউড়ায় হাসপাতালে নারী কেলেঙ্কারি

অভিযুক্ত ২ জনকে সাসপেন্ড

বাংলারজমিন

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
২৯ নভেম্বর ২০২০, রবিবার

কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার হাসপাতালে হিসাবরক্ষকের নারী কেলেঙ্কারির ঘটনায় গত ৩ দিন থেকে চলছে তোলপাড়। এ ঘটনায় হিসাবরক্ষকসহ ২ জনকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। কর্তৃপক্ষ ঘটনাকে গরু চুরি নিয়ে চিৎকার চেঁচামেচি বলে ধামাচাপা দেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত। একাধিক বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাজার খ্রিষ্টান মিশন হাসপাতালের হিসাবরক্ষক ডেভিট তাপাদার গত ২৪শে নভেম্বর রাত আনুমানিক ৩টায় এক নার্সের কক্ষে অনৈতিকভাবে প্রবেশ করেন। বিষয়টি হাসপাতালের কর্তব্যরত নাইটগার্ড সাধন টের পান। কিছুক্ষণের মধ্যে ওই কক্ষের নার্সের চিৎকারে কর্তব্যরত নাইটগার্ড সাধনসহ হাসপাতালের লোকজন ছুটে আসেন। এ সময় উপস্থিত লোকজন হিসাবরক্ষক ও নার্সের কাছ থেকে লিখিত নেন। ঘটনার পরদিন ভোরে ওই নার্সকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
কিন্তু হিসাবরক্ষক ডেভিড বহাল থাকায় শুরু হয় তোলপাড়। খবর ছড়ায় হাসপাতালের হেড অফিস ঢাকায়। ২৬শে নভেম্বর হাসপাতালের প্রকল্প পরিচালক ফাল্গুনী সরকার ছুটে আসেন ব্রাহ্মণবাজার মিশন হাসপাতালে। সূত্র জানায়, ফাল্গুনী সরকার বিষয়টি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হয়ে অভিযুক্ত হিসাবরক্ষক ডেভিড তপাদারকে সঙ্গে করে ঢাকায় নিয়ে যান। অপকর্মের জন্য ডেভিড তপাদারকে চাকরিচ্যুত করেন। একাধিক সূত্রে জানায়, হিসাবরক্ষক ডেভিড হেড অফিসের বিশ্বস্ত লোক বলে ব্রাহ্মণবাজার মিশন হাসপাতালে যোগদানের পর থেকে নানা অপকর্মে লিপ্ত। ওই সিনিয়র নার্স পুরো ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে জোর অপতৎপরতা চালাচ্ছেন। এমনকি মিডিয়ায় মুখ না খোলার জন্য অব্যাহতিপ্রাপ্ত নার্সকে নিষেধ করেন। অভিযুক্ত হিসাবরক্ষক ডেভিড তপাদার জানান, এটা আমাদের ইন্টারনাল বিষয়। সেদিন রাতে ঘটে যাওয়া ঘটনা সম্পর্কে তিনি বলেন, গরু চোর হাসপাতাল এলাকায় প্রবেশ করলে হট্টগোল সৃষ্টি হয়। ওই নার্স ছুটিতে আছেন বলে তিনি জানান। হাসপাতালের ডাক্তার ডেভিড তন্ময় বিশ্বাস পুরো ঘটনাটি অস্বীকার করেন। তিনি জানান, ওই নার্স ছুটিতে এবং হিসাবরক্ষক মধ্যাহ্ন ভোজে আছেন বলে তিনি জানান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর