× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার

হিজলায় বড় ভাইয়ের পা কর্তন, ভাবিকে কুপিয়ে জখম

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে
২৯ নভেম্বর ২০২০, রবিবার

বরিশালের হিজলা উপজেলার গুয়াবাড়িয়া ইউনিয়নের পূর্ব কোড়ানিয়া গ্রামের মৃত হাসেম বাবুর্চির পুত্র দুলাল বাবুর্চি ও তার স্ত্রী নিরুপা বেগমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে তারই ছোট ভাই ও ভাইয়ের ছেলেরা। একপর্যায়ে দুলাল বাবুর্চি পা কুপিয়ে দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে ছোট ভাই, চিহ্নিত সন্ত্রাসী অস্ত্র মামলায় ১৪ বছর সাজা খেটে বের হওয়া ডাকাতি চাঁদাবাজি মাদক সহ অর্ধ শতাধিক মামলার আসামি নুরু বাবুর্চি ও তার তিন ছেলে। ২৮শে নভেম্বর দুলাল বাবুর্চি কাউরিয়া বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে নুরু বাবুর্চি তার তিন পুত্র সহ কয়েকজন সন্ত্রাসী পথ রোধ করে দুলাল বাবুর্চি (৫৪) কে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে পা কর্তন করে। দুলালের চিৎকারে তার স্ত্রী নিলুফা বেগম ছুটে আসলে তিনি ও সন্ত্রাসী নুরু বাবুর্চি ও তার সঙ্গীদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি। তাকেও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়।আহত দুলাল বাবুর্চি ও তার স্ত্রী নিলুফা বেগম বরিশাল শেরেবাংলা শেবাচিমে চিকিৎসাধীন। সেখানে ক্ষান্ত হয়নি সন্ত্রাসী নুরু বাবুর্চি রাত আনুমানিক বারোটার দিকে আবারো তিনি তাঁর দলবল নিয়ে একই এলাকায় আরেক চাচতো ভাইয়ের বাড়িতে হামলা চালাতে গিয়েছিল। সংবাদে পেয়ে এলাকাবাসী প্রতিরোধ করলে নুরু বাবুর্চি ও তার দলবল পালিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে রাতভর ওই এলাকা পাহারায় ছিল হিজলা থানা পুলিশ।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় নুরু বাবুর্চি ও দুলার বাবুর্চির মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ পারিবারিক অন্তর্দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ৩/৪ মাস আগে আপন চাচাতো ভাই কাঞ্চন বাবুর্চিকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে তার শরীর ক্ষত-বিক্ষত করে দেয়। ২৫ বছর আগে নুরু বাবুর্চি কাউরিয়া বাজারে তার দাদা শ্বশুরের কান কেটে প্রকাশ্যে উল্লাস করেছিল। সে থেকেই হিজলা উপজেলায় আতংকের অপর নাম নুরু বাবুর্চি।
হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ অসীম কুমার সিকদার দুলাল বাবুর্চি ও তার পরিবারের উপর হামলার ঘটনা স্বীকার করে বলেন নুরু বাবুর্চি কে এরই মধ্যে কয়েকবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিল। গতকালকের ঘটনা জানতে পেরে তাৎক্ষণিক পুলিশ গিয়েছে। সেখানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর