× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

অ্যান্থনি ফাউচির সতর্কতা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) নভেম্বর ৩০, ২০২০, সোমবার, ১০:৪৩ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাস নিয়ে আরো একবার মার্কিনিদের সতর্ক করলেন যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক ব্যাধি বিষয়ক শীর্ষ বিজ্ঞানী ড. অ্যান্থনি ফাউচি। তিনি বলেছেন, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ আরো ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। কারণ, থ্যাংকসগিভিংয়ের ছুটি উপলক্ষে লাখ লাখ মানুষ বাড়িঘরে ফিরছেন। তাই রোববার অ্যান্থনি ফাউচি বলেন, যারা এখনও সফর করেননি তাদের উচিত এই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে মাস্ক পরা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে আরো বলা হয়, এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হযেছেন কমপক্ষে এক কোটি ৩০ লাখ মানুষ। মারা গেছেন কমপক্ষে দুই লাখ ৬৬ হাজার মানুষ। রোববার নাগাদ নভেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ৪০ লাখ।
অক্টোবরে আক্রান্তের সংখ্যার চেয়ে এই সংখ্যা দ্বিগুন।
উল্লেখ্য, থ্যাংকসগিভিং বিশেষ এক রকম ছুটি যুক্তরাষ্ট্রে। এ সময় সেখানকার ট্রাভেল ব্যবসা থাকে জমজমাট। কারণ, লাখ লাখ মার্কিনি তার প্রিয়জনের সঙ্গে সাক্ষাত করতে একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছোটেন। গত বছর এ সময়ে সপ্তাহে বিমানবন্দর দিয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাতায়াতাকারীর সংখ্যা ছিল প্রায় দুই কোটি ৬০ লাখ। তবে এবার করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে জনগণকে এই বিশেষ সময়টা ঘরেই কাটানোর আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তা সত্ত্বেও মধ্য মার্চের পর থেকে এ সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবন্দরগুলো ছিল সবচেয়ে বেশি ব্যস্ত। ট্রান্সপোর্ট সিকিউিিরটি এডমিনিস্ট্রেশনের পরিসংখ্যান বলছে, গত সপ্তাহে ৮ লাখ থেকে ১০ লাখ মানুষ বিভিন্ন স্থানে সফর করেছে। তাদেরকে সতর্ক করেছেন ড. অ্যান্থনি ফাউচি। তিনি সিএনএনের স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে সফরকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সম্ভব হলে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে থাকার। তার এ কথার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন হোয়াইট হাউজের করোনা ভাইরাস বিষয়ক সমন্বয়কারী ড. দেবোরা বিরক্স। তিনি সিবিএস নিউজকে বলেছেন, যেসব মানুষ থ্যাংকগিভিংয়ে বাড়ি ফিরছেন তাদের উচিত হবে ৬৫ বছরের বেশি বয়স এমন কারো সঙ্গে সাক্ষাত এড়িয়ে চলা। এ সময়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ তিন, চার বা ১০ গুন বৃদ্ধি পেতে পারে। এ পরিস্থিতিতে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।
ওদিকে নিউ ইয়র্ক সিটির মেয়র বিল ডি ব্লাসিও বলেছেন, ডিসেম্বরে খুলে দেয়া হতে পারে স্কুলগুলো। কয়েক সপ্তাহ আগে দ্বিতীয়বারের মতো বন্ধ করা হয়েছিল স্কুল। তবে অভিভাবকরা এখনই স্কুল খোলার বিরুদ্ধে। তারা বলেছেন, বার এবং রেস্তোরাঁ খুলে দেয়া যেতে পারে, কিন্তু স্কুল নয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২৯ নভেম্বর ২০২০, রবিবার, ১০:২৩

Back of study one year is much better than spoiling life.

অন্যান্য খবর