× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

বিএনপি সন্ত্রাস ও তোষণের নীতি অনুসরণ করছে -ওবায়দুল কাদের

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে
৩ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন- অনিয়ম ও দুর্নীতির আশ্রয় নিলে আমরা যেখানে নিজেদের দলীয় নেতাকর্মী এমনকি জনপ্রতিনিধিদেরও ছাড় দিচ্ছি না, অন্যায় করলে পক্ষ নিচ্ছি না, প্রশ্রয়ও দিচ্ছি না। অথচ বিএনপি অনুসরণ করছে সন্ত্রাস ও তোষণের নীতি। তারা সরকারের উন্নয়নমূলক কাজের অন্ধ সমালোচনা করে যাচ্ছে। করোনাকালীন দুঃসময়ে বিএনপি জনগণের আরো করুণ অবস্থা প্রত্যাশা করেছিল। তারা বলেছিল মানুষ না খেতে পেয়ে বিনা চিকিৎসায় রাস্তায় মরে পড়ে থাকবে। কিন্তু আল্লাহর অশেষ রহমতে সেই পরিস্থিতি হয়নি বলে বিএনপি’র মনে খুব জ্বালা। তারা নিজেরাই আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল। তাদের গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা বাতিলের মাধ্যমে সেটাই তারা প্রমাণ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।

বুধবার দুপুরে সাভারের নয়ারহাট দ্বিতীয় সেতুর ৪ লেন কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী এসময় আরো বলেন, বিএনপি সুবিধাবাদ ও জিন্দাবাদে বিশ^াস করে বলে গঠনতন্ত্র থেকে এক রাতে কলমের খোঁচায় ৭ ধারা বাতিল করেছে। সাত ধারায় বলা আছে চিহ্নিত দুর্নীতিবাজরা নেতা কিংবা জনপ্রতিনিধি হতে পারবে না এবং মাদকসেবী বা দেউলিয়া কোনো ব্যক্তি বিএনপি’র নেতা হতে পারবে না। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি বিএনপি সন্ত্রাসীদের লালন করে, তাদের আমলে কোনো দলীয় অপরাধীর অপরাধের বিচার হয়নি। দলগতভাবে তারা হত্যা আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে বিশ^াসী এবং এটাই তাদের রাজনৈতিক ঐতিহ্য। দেশের মানুষের ভোগান্তি আর কষ্টই তাদের প্রত্যাশা। তাই তারা সরকারের বিরোধিতা করতে গিয়ে দেশ ও জনগণের উন্নয়নের বিরোধিতা করে যাচ্ছে। জনগণ এখন আর তাদের কথায় সায় দেয় না, তাদের আন্দোলনের ডাক আষাঢ়ের তর্জন গর্জনের মতোই সার। আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঢাকা-২০ আসনের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ বেনজীর আহমেদ, পৌর মেয়র গোলাম কবির মোল্লা প্রমুখ। জিওবি’র অর্থায়নে নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা ১৯৩.৩০ মিটার সেতুটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৫.৭৩ কোটি টাকা, চুক্তি মূল্য ৯৫.১৫৩০ কোটি টাকা এবং বাস্তবায়ন কাল ০১-১১-২০২০ হতে ৩১-১০-২০২২ পর্যন্ত। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর বাস্তবায়নে শুরু হওয়া কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মাসুদ হাই- টেক ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড, হাসান টেকনো বিল্ডার্স লিমিটেড ও রানা বিল্ডার্স (প্রা.) লিমিটেড (জেভি)। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার, সালেহপুর ও নয়ারহাট নামক ৩টি সেতু নির্মাণ প্রকল্পের অধীনে ১৯.৪০ মিটার প্রশস্ত সেতুটির সঙ্গে ৬ লেন বিশিষ্ট ৮০০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ২৪.৬০ মিটার প্রশস্ত এ্যাপ্রোচ সড়ক, একটি আন্ডারপাস, ১৬০০ মিটার ইউ-লুপ সড়ক, একটি ফুটওভার ব্রিজ ও একটি বাস-বে নির্মাণ করা হবে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর