× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

সরিষাবাড়ীতে অজ্ঞান পার্টির আতঙ্ক

বাংলারজমিন

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
৩ ডিসেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে অজ্ঞান পার্টির অভিনব কায়দায় চুরি বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃদ্ধি পেয়েছে গরু চুরির ঘটনা। চেতনা নাশক স্প্রে ব্যবহার করে পরিবারের সদস্যদের অজ্ঞান করে হাতিয়ে নিচ্ছে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কারসহ দামি সামগ্রী। এ কারণে উপজেলার সর্বত্র জনমনে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।
আক্রান্ত সদস্য ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী পৌরসভার মুলবাড়ী গ্রামের প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াছেল সরকারের বাড়িতে অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য এনামুল হক ঢাকা সিএমএইচ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ সুযোগে গত ৩০শে নভেম্বর রাতে তার বাসায় অজ্ঞান পার্টি ঢুকে এনামুল হকের স্ত্রী হ্যাপী এনাম ও তার ২ পুত্র প্রিন্স ও সম্রাটকে চেতনা নাশক স্প্রে দিয়ে সংজ্ঞাহীন করে আলমারি ভেঙে নগদ প্রায় ৫০ হাজার টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও দামি সামগ্রী চুরি করে নিয়ে যায়। সংজ্ঞাহীন পরিবারের সদস্যরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান শাহজাদা সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মো. ফজলুল করীমকে অবহিত করেছেন বলে জানান।
সম্প্রতি পৌরসভার মাইজবাড়ী গ্রামের উপজেলা আনসার ও ভিডিপি’র সাবেক কর্মকর্তা আব্দুল আজিজের পরিবারের সদস্যদের চেতনা নাশক স্প্রে প্রয়োগ করে অজ্ঞান করে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার চুরি, সরিষাবাড়ী রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন সালেমা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোকেশনাল জেনারেল ইলেকট্রনিক ডিপ্লোমা ইন্সট্রাক্টর আনোয়ারুল ইসলামের বাসায় তার পরিবারের ৪ জনকে চেতনা নাশক স্প্রে দিয়ে সংজ্ঞাহীন করে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা অর্থ-স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়।
গত ১৫ই নভেম্বর মুলবাড়ী গ্রামের ইমান আলীর ছেলে সোহানুর রহমান শাহীনের নবনির্মিত বাসায় লোহার কেচি গেটের তালা ভেঙে সিলিং ফ্যান ও পানির মোটরসহ দেয়ালে লাগানোর জন্য ক্রয়কৃত রংয়ের ড্রাম, ২৮শে নভেম্বর আদালতপাড়ার শাহাবুদ্দিনের এলইডি টিভি, সরকারি ট্যাব চুরি হয়। রুবেল মিয়ার বাসায় আলমারি, ওয়ার ড্রব, শোকেস ভেঙে জিনিসপত্র তছনছ করে মূল্যবান সামগ্রী চুরি করে।
২৯শে নভেম্বর রাতে পৌরসভার আদালতপাড়া এলাকার পত্রিকার এজেন্ট গিয়াস উদ্দিনের বাসায় চুরির ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ রয়েছে।
এদিকে গরু চোরের উপদ্রব ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে গোয়ালঘরের তালা কেটে সরিষাবাড়ী পৌরসভার বাঙ্গালীপাড়া গ্রামের কৃষক আব্দুর রহিমের ২টি গাভী, ২টি ষাঁড়, ১টি বকনা গরুসহ মোট ৫টি গরু চুরি করেছে বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার উপজেলার মহাদান পশ্চিমপাড়া গ্রামের সাবান আলীর গোয়ালঘর থেকে গর্ভবতী ২টি গরু চুরি হয়।
গত ১৬ই নভেম্বর ভোর রাতে উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের বড়বাডীয়া দক্ষিণ (নয়াপাড়া) গ্রামের কৃষক নায়েব আলীর ২টি গাভী ও ২টি বাছুর, সাবের আলীর ২টি গাভী, ২টি বাছুর, খোরশেদ আলমের ১টি গাভী, ১টি বাছুর, পৌরসভার বলারদিয়ার গ্রামের মৃত তাহের মাস্টারের ছেলে মোস্তফার ২টি গাভী গরু, পঞ্চপীর গ্রামের সাইদুর রহমানের অস্ট্রেলিয়ার ১টি গাভী, উপজেলার মহাদান ইউপি’র সেঙ্গুয়া গ্রামের ভূঁইয়াপাড়ার খলিল মিয়ার ৩টি ও তোতা মিয়ার ৪টি গরু, বড়শরা গ্রামের মৃত হানি মিয়ার ছেলে হাসমত আলীর ৩টি গরু ও বাদশা মিয়ার ছেলে নজরুল ইসলামের ১টি গরু ও আওনা ইউনিয়নের কাবাড়িয়াবাড়ীর বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান মাস্টারের ১টি গরু, পৌরসভার সামর্থ্যবাড়ী গ্রামের কামাল হোসেন ভে-ারের মূল্যবান ৬টি ষাঁড়  গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। কয়েকদিনে মোট ৩৮টি গরু চুরির ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মো. ফজলুল করীম জানান, বিভিন্ন চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।
 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর