× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার

লিবিয়ায় এখনও ২০,০০০ বিদেশি যোদ্ধা- জাতিসংঘ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ৩, ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন

এখনও কমপক্ষে ২০,০০০ বিদেশি যোদ্ধা ও ভাড়াটে অস্ত্রধারীই লিবিয়ার মারাত্মক সঙ্কট। তাদের কাছে অব্যাহতভাবে যাচ্ছে অস্ত্র। এর ফলে পরিস্থিতি আরো খারাপ হচ্ছে বলে সতর্ক করেছেন লিবিয়া বিষয়ক জাতিসংঘের ভারপ্রাপ্ত দূত স্টেফানি উইলিয়ামস। তিনি লিবিয়ান পলিটিক্যাল ডায়ালগ ফোরামের অনলাইন মিটিংয়ে বলেছেন, এসব যোদ্ধা লিবিয়ার সার্বভৌমত্বকে ভয়াবহভাবে লঙ্ঘন করছে। এটা হতাশাজনক। অস্ত্রনিষেধাজ্ঞারও লঙ্ঘন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা। উল্লেখ্য, লিবিয়ান পলিটিক্যাল ডায়ালগ ফোরাম হলো ৭৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি ফোরাম।
লিবিয়ায় যুদ্ধে লিপ্ত পক্ষগুলোকে তারা একটি চুক্তিতে আবদ্ধ করার জন্য চেষ্টা করছে। চেষ্টা করছে একটি অন্তর্বর্তী সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য, যে সরকার ২০২১ সালের ডিসেম্বরে সেখানে প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট নির্বাচন করবে এবং তার ভিতর দিয়ে দেশ পরিচালিত হবে। জাতিসংঘ লিবিয়ায় যুদ্ধ, বিশৃংখলা বন্ধের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছে। তার অধীনেই অনলাইনে ফোরামের ওই বৈঠক হয়। উল্লেখ্য, ২০১১ সালে ন্যাটো সমর্থিত অভিযানে উৎখাত করা হয় লিবিয়ার নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে। তখন থেকেই দেশটিতে অব্যাহতভাবে সহিংসতা চলছে। ২০১৫ সাল থেকে সেখানে সশস্ত্র গ্রুপগুলোর মধ্যে লড়াই চলছে। দেশটি যে যার মতো দখলে রাখার চেষ্টা করছে। এর ফলে সেখানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে দুটি প্রশাসন। একটি নেতৃত্বে আছে জাতিসংঘ স্বীকৃত গভর্নমেন্ট অব ন্যাশনাল একর্ড (জিএনএ)। অন্যটির নেতৃত্বে আছেন সেনাবাহিনীর কমান্ডার খলিফা হাফতার। স্টেফানি উইলিয়ামস পরে আল জাজিরাকে বলেছেন, সবাইকে লিবিয়ার প্রতি সম্মান দেখাতে হবে। তাদেরকে একত্রিত হবে, যাতে যুদ্ধবিরতি কার্যকরভাবে সফল হয় এবং সামরিক শক্তিকে প্রত্যাহার করা যায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর