× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

রামগঞ্জে আওয়ামী লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৬

বাংলারজমিন

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি
৪ ডিসেম্বর ২০২০, শুক্রবার

কেন্দ্রীয় নেতাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বিকালে উপজেলার পানপাড়া বাজার এলাকায়  লামচর ইউপির দুই সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ফয়েজ উল্যা জিসান ও মো. মিজানুর রহমান সোহাগ গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষ বাধে। এ সময় উভয় গ্রুপের অন্তত ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। সূত্রে জানায়, পূর্ব ঘোষিত বৃহস্পতিবার লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা শেষে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহম্মদ হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হারুনুর রশিদ, লক্ষ্মীপুর-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য একেএম শাহাজাহান কামাল রামগঞ্জ হয়ে ঢাকা যাওয়ার পথে লক্ষ্মীপুর-রামগঞ্জ সড়কের পানপাড়া বাজার এলাকায় রামগঞ্জ উপজেলার লামচর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক উপজেলা যুবলীগ নেতা ফয়েজ উল্যাহ জিসান ও লামচর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান সোহাগ পৃথক দু’টি স্থানে কেন্দ্রীয় নেতাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে সড়কের দু’পাশে অবস্থান করেন। এ সময় কেন্দ্রীয় নেতারা অতিক্রম করার পর পরই দুই গ্রুপের সমর্থকদের মাঝে স্লোগান নিয়ে একত্র হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ২ গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। দফায় দফায় সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের ৬ জন গুরুতর আহত হন। লামচর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও দলীয় চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী মিজানুর রহমান সোহাগ বলেন, ফয়েজ উল্যাহ জিসান সমর্থকদের নিয়ে আমাদের স্থান থেকে দুইশ’ গজ দূরে ফয়েজ উল্যা জিশান তার লোকজন নিয়ে বাসস্ট্যান্ডে কেন্দ্রীয় নেতাদের শুভেচ্ছা জানায়। ওখান থেকে কেন্দ্রীয় নেতারা মধ্যবাজার আমার সমর্থকরা দাঁড়িয়ে থাকা স্থানে উপস্থিত হলে ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়।
নেতারা আমাদের ফুলেল শুভেচ্ছা নিয়ে চলে যাওয়া মাত্রই জিসান তার লোকজন নিয়ে আমার কর্মী ও সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। সাবেক যুবলীগ নেতা ও সম্ভাব্য লামচর ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ফয়েজ উল্যাহ জিসান বলেন, মিজানুর রহমান সোহাগের সমর্থকরা রাস্তা বন্ধ করে স্লোগান দিতে থাকায় লোকজন সরিয়ে দিতে গেলে ক্ষুব্ধ হয়ে মিজানুর রহমান সোহাগের লোকজন আমার লোকজনের ওপর হামলা চালায়। লামচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল খায়ের পাটোয়ারী ও সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক টুনা বলেন, আমরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে মিজানুর রহমান সোহাগের  লোকজনের অতিক্রম করার সঙ্গে সঙ্গেই সংঘর্ষ শুরু হয়।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত ফাঁড়ি ও থানা পুলিশের এএসআই ফখরুল জানান, আমরা মাত্র ২ জন পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম। কিন্তু অনেক নেতাকর্মীর উপস্থিতির কারণে পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে নিজের মোবাইল ফোনে ভিডিও করে রেখেছি। পরে ভিডিও দেখে ব্যবস্থা নেয়া যাবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর