× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

সিলেটের শাহ্‌পরাণে মানবন্ধন-অবরোধ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে
৫ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার

মাদক ব্যবসায়ী, মাদকসেবী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছেন সিলেটের বৃহত্তর শাহ্‌পরাণ এলাকার বাসিন্দারা। গতকাল দুপুর ২টায় শহরতলীর শাহ্‌পরাণ-খাদিম চৌমুহনী পর্যন্ত আয়োজিত মানববন্ধন থেকে ওই ঘোষণা দেয়া হয়। আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন খাদিমপাড়া ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আনোয়ার হোসেন আনু। বক্তব্য রাখেন খাদিম চৌমুহনী বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, ব্যবসায়ী আমির আলী, শেখর রঞ্জন দাস, খাদিম চৌমুহনী বাজার মসজিদের সাবেক মোতাওয়াল্লি জুলুবুর রাজা চৌধুরী, খাদিম চৌমুহনী বাজার মসজিদের মোতাওয়াল্লি রাজা মিয়া রাজন, মসজিদের সেক্রেটারি বেলাল আহমদ, আফতাব উদ্দিন, শাহপরান আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সোহেল আহমদ, মোহাম্মদ আলী খোকন, আবু জাফর জাহাঙ্গীর, মিঠু আহমদ, নেয়ামত আলী, আবুল কাশেম, আব্দুল বাতেন চৌধুরী নাদের, কামাল আহমদ, আবদুল কুদ্দুস, ফারুক আহমদ, আল আমিন, সালেহ আহমদ, হেলাল উদ্দিন মিনাল, হানিফ মিয়া, হেলাল উদ্দিন, আবদুল মুমিন, আবদুর রাজ্জাক, শুভ আহমদ, সুলতান আহমদ, জিলুক মিয়া, জিল্লু বারী, চন্দন দাস, কালাম মিয়া, কাইয়ুম, তাহির, রাজু ও তাঁতী লীগ নেতা পারভেজ আহমদ রাজু। মানববন্ধন চলাকালে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ করেন। মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের গ্রেপ্তার না করায় ওই অবরোধ গড়ে তুললে রাস্তার দুইপাশে শতশত যানবাহন আটকা পড়ে। এ সময় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করেন মেম্বার আনোয়ার হোসেন আনু ও সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিমের সঙ্গে। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয় অবিলম্বে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে।
ওই আশ্বাস পেয়ে অবরোধ তুলে নেয়া হয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের কারণে বৃহত্তর শাহপরান এলাকার সামাজিক পরিবেশ হুমকির মধ্যে পড়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পান না। কারণ প্রতিবাদ করে সাধারণ মানুষ বিভিন্ন সময় লাঞ্ছিত হয়েছেন। শাহপরান উপশহরের বাসিন্দারা ওইসব মাদক ব্যবসায়ী ও চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলেন। পুলিশ বরাবরে আবেদন করেছেন। এর জের ধরে সাংবাদিক মুজিবুর রহমান ডালিমের বাসায় হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট হয়। বক্তারা বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তার না করলে রাস্তা অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর