× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

মাগুরায় মাঠে আওয়ামী লীগের ৬ প্রার্থী

বাংলারজমিন

এস আলম তুহিন, মাগুরা থেকে
৬ ডিসেম্বর ২০২০, রবিবার

আসন্ন ১৬ই জানুয়ারি মাগুরা পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ৯টি ওয়ার্ড চষে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য ৬ প্রার্থী। দলীয় মনোনয়ন পেতে তারা লবিং ও গ্রুপিং করছেন কেন্দ্রে। নাগরিকদের নানা প্রতিশ্রুতি দিতে অনেক মেয়রপ্রার্থী  বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গণসংযোগ, শুভেচ্ছা বিনিময় ও সভা করছেন। এতে সরগরম হয়ে উঠছে পুরো পৌরসভা। বর্তমান মেয়র প্রার্থী খুরশিদ হায়দার টুটুল জানান, আমি পৌরসভায় নির্বাচিত হওয়ার পর  নাগরিকদের নানা সমস্যার সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমার পিতা এ পৌরসভায় চেয়ারম্যান থাকাকালীন যেমন মানুষের দুঃখ-কষ্টের সঙ্গে ছিলেন। আমিও তেমনি মানুষের সার্বিক সেবা দেয়ার জন্য দিনরাত পরিশ্রম করছি। এ ৫ বছরে আমি পৌরসভাকে নানা উন্নয়নের ধারায় পৌঁছে দিয়েছি।
তাই আমি শতভাগ আশাবাদী যে, দলীয় ভাবে আমি এবারও মনোনয়ন পাবো। মনোনয়নপ্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক রানা আমীর ওসমান বলেন, রাজনীতির পাশাপাশি আমি নানা ধরনের সামাজিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন পেতে আমি জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। যদি মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হই তাহলে আধুনিক পৌরসভা নির্মাণের পরিকল্পনা আছে আমার। আরেক মেয়রপ্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট শাখারুল ইসলাম শাকিল জানান, সত্য ও ন্যায়ের পথে সব সময় মানুষের পাশে থেকে তাদের সহযোগিতা করেছি। মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি, দল আমাকে মনোনয়ন দেবে। জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান স্বপন জানান, আমি মেয়র পদে মনোনয়নের জন্য চেষ্টা করছি। ইতিমধ্যে আমি পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে নাগরিকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করছি। আশা করছি, মনোনয়ন পাবো। জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক সোহেল পারভেজ মিয়া দীপ বলেন, মাগুরা পৌরসভার এখনো অনেক ওয়ার্ডে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। তাই আমি নির্বাচিত হলে পৌরসভার মান উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবো। পাশাপাশি পৌর নাগরিকদের সার্বিক সেবা প্রদানের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাবো। অন্যদিকে, নতুনদের মধ্যে পছন্দের তালিকায় মেয়র প্রার্থী হিসেবে প্রথম রয়েছেন তরুণ, মেধাবী, দক্ষ ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক নিরাপত্তা ইউনিটের (এসএসএফ’র) ডেপুটি ডাইরেক্টর পাইলট রফিকুল ইসলাম কামাল। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির একজন সক্রিয় সদস্য হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনার আশীর্বাদপুষ্ট রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধুর নীতি ও আদর্শ বাস্তবায়নে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর