× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

চট্টগ্রামে বিজিবি’র ২৫২৪ জন নবীন সৈনিকের শপথ গ্রহণ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে
৬ ডিসেম্বর ২০২০, রবিবার

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার বায়তুল ইজ্জতে বিজিবি’র প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টার অ্যান্ড কলেজের বীর উত্তম মজিবুর রহমান প্যারেড গ্রাউন্ডে ২৫২৪ জন নবীন সৈনিক শপথ গ্রহণ করেছেন। বিজিবি’র ৯৫তম রিক্রুট ব্যাচের এই প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে  শপথ নেন তারা।
শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রীকে রাষ্ট্রীয় সালাম প্রদানের মধ্য দিয়ে নবীন সৈনিকদের শপথ গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়। গণভবন থেকে ভিডিও টেলিকনফারেন্স (ভিটিসি)-এর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করে কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন।
অনুষ্ঠানে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম বক্তব্য প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন ভিডিও টেলিকনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিজিবি এখন ত্রিমাত্রিক সুশৃঙ্খল বাহিনী। এ বাহিনী জলে, স্থলে ও আকাশপথে দায়িত্ব পালনের সক্ষমতা অর্জন করেছে। এ বাহিনীর সাংগঠনিক কাঠামোতে ১৫ হাজার জনবল বৃদ্ধির পরিকল্পনা করা হয়েছে। যা তিন ধাপে বাস্তবায়ন করা হবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, শৃঙ্খলা হচ্ছে সৈনিকের মূল পরিচিতি।
আদেশ ও কর্তব্য পালনে যে কখনো পিছপা হয় না সেই প্রকৃত সৈনিক। সততা, বুদ্ধিমত্তা, নির্ভরযোগ্যতা, আনুগত্য, তেজ ও উদ্দীপনা একটি বাহিনীর শৃঙ্খলা ও পেশাগত দক্ষতার মাপকাঠি। নবীন সৈনিকদের মধ্যে এসব গুণাবলীর প্রতিফলন সকলকে অনুপ্রাণিত ও মুগ্ধ করেছে। প্রধানমন্ত্রী নবীন সৈনিকদের নতুন জীবনে পদার্পণের শুভ লগ্নে তাদের স্বাগত জানান।
বিজিবি’র সার্বিক উন্নয়নে বর্তমান সরকারের বাস্তবায়িত কর্মকা-ের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্মার্ট বর্ডার ম্যানেজমেন্টের অংশ হিসেবে সীমান্তে নতুন নতুন বিওপি, বিএসপি নির্মাণসহ অত্যাধুনিক সার্ভেইলেন্স ইক্যুইপমেন্ট স্থাপন, এটিভি ও অত্যাধুনিক এপিসি, ভেহিক্যাল স্ক্যানার ও দ্রুতগামী জলযান সংযোজন করা হয়েছে।
সমাপনী কুচকাওয়াজের প্যারেড কমান্ডার হিসেবে প্যারেড পরিচালনা করেন ৯৫তম রিক্রুট ব্যাচের অফিসার ইনচার্জ মেজর কাজী মনজুরুল ইসলাম এবং প্যারেড অ্যাডজুটেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সহকারী পরিচালক বেগ আব্দুল্লাহ আল মামুন।
বিজিবি সূত্র জানায়, গত ১৪ই জুন বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টার অ্যান্ড কলেজে ৯৫তম রিক্রুট ব্যাচের মৌলিক প্রশিক্ষণ শুরু হয়। বিজিটিসিএন্ডসিতে প্রশিক্ষণ নেয়া মোট ৭৯১ জন রিক্রুটÑ এর মধ্যে ৫৯০ জন পুরুষ এবং ২০১ জন নারী রিক্রুট ছিলেন।
বিজিটিসিএন্ডসি ছাড়াও আরো ৬টি প্রশিক্ষণ ভেন্যুতে ৯৫তম রিক্রুট ব্যাচের ১৭৩৩ জন রিক্রুটসহ সর্বমোট ২৫২৪ জন রিক্রুট মৌলিক প্রশিক্ষণ স¤পন্ন করে। দীর্ঘ ২৪ সপ্তাহের অত্যন্ত কঠোর ও কষ্টসাধ্য এ প্রশিক্ষণ সফলভাবে শেষ করে আনুষ্ঠানিক শপথ গ্রহণ ও সমাপনী কুচকাওয়াজের মাধ্যমে তাদের সৈনিক জীবনের শুভ সূচনা হলো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর