× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার

নভেম্বরে সড়কে প্রাণ গেছে ৪৩৯ জনের

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
৬ ডিসেম্বর ২০২০, রবিবার

দেশে গত এক মাসে (নভেম্বর) সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৪১৭টি। এতে মারা গেছেন ৪৩৯ জন। অক্টোবর মাসের তুলনায় নভেম্বর মাসে দুর্ঘটনা বেড়েছে প্রায় ৩২ শতাংশ, আর প্রাণহানি বেড়েছে ১৪ শতাংশ। গতকাল রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। সংস্থাটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে এই প্রতিবেদনটি তৈরি করে। দুর্ঘটনা রোধে ১০টি বিষয়ে সুপারিশ করেন রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

জানা যায়, গত সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বরে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির সংখ্যা বেড়েছে। সেপ্টেম্বর মাসে সারা দেশে ২৭৩টি সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন ৩০৪ জন, আহত হয়েছিলেন ৪৯২ জন।
অক্টোবরে দুর্ঘটনার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৩১৪টিতে। মারা গেছেন ৩৮৪ জন, আহত হয়েছেন ৬৯৪ জন। নভেম্বর মাসে ৪১৭টি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ৪৩৯ জন। এর মধ্যে ৬৪ জন নারী ও ৫৩ জন শিশু রয়েছে। এদিকে, ১২৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১৪১ জন, যা মোট নিহতের ৩২ দশমিক ১১ শতাংশ। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৩০ দশমিক ৬৯ শতাংশ। দুর্ঘটনায় ১১৬ জন পথচারী নিহত হয়েছেন, যা মোট নিহতের ২৬ দশমিক ৪২ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছে ৪৯ জন, যা মোট নিহতের ১১ দশমিক ১৬ শতাংশ। এই সময়ে চারটি নৌ-দুর্ঘটনায় তিন জন নিহত ও আট জন আহত হয়েছেন। আর ২৯টি রেলপথ দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৩২ জন, আহত হয়েছেন সাত জন।
এদিকে দুর্ঘটনা রোধে ১০টি সুপারিশও করেছে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন। এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে দক্ষ চালক তৈরির উদ্যোগ বৃদ্ধি করতে হবে; চালকের বেতন ও কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট করতে হবে; বিআরটিএ’র সক্ষমতা বাড়াতে হবে; পরিবহনের মালিক-শ্রমিক, যাত্রী ও পথচারীদের প্রতি ট্রাফিক আইনের বাধাহীন প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে; মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল বন্ধ করে এগুলোর জন্য আলাদা পার্শ্ব রাস্তা তৈরি করতে হবে; পর্যায়ক্রমে সব মহাসড়কে রোড ডিভাইডার নির্মাণ করতে হবে; গণপরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে; রেল ও নৌপথ সংস্কার ও সমপ্রসারণ করে সড়ক পথের ওপর চাপ কমাতে হবে; টেকসই পরিবহন কৌশল প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করতে হবে; এবং ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’-এর সুষ্ঠু প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। রোড সেফটি ফাউন্ডেশন বলছে, দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির হার ক্রমেই বাড়ছে। জাতীয় মহাসড়কে সব সময় দুর্ঘটনার হার বেশি থাকলেও নভেম্বর মাসে জাতীয় মহাসড়কের তুলনায় আঞ্চলিক ও গ্রামীণ সড়কে দুর্ঘটনার হার বেড়েছে। মোটরসাইকেলের চালক ও পথচারী নিহতের ঘটনা চরমভাবে বেড়েছে। রেল ক্রসিংয়ে চারটি বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে এই নভেম্বর মাসে। এসব দুর্ঘটনা রোধ করতে রেল ক্রসিংয়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর