× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

কি হচ্ছে নাটকে?

বিনোদন

এন আই বুলবুল
১৪ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

একটা সময় দর্শকরা ড্রয়িং রুমে বসেই পরিবার নিয়ে টিভি নাটক দেখতো। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় ও প্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনে এটি এখন ড্রয়িং রুমে সীমাবদ্ধ নেই। ইউটিউবসহ বিভিন্ন অ্যাপে এখন নাটক দেখছে দর্শকরা। কিন্তু আজকাল কি হচ্ছে নাটকে? এমন প্রশ্ন প্রায়ই শোনা যায় দর্শকের কাছে। বিভিন্ন নাটকের ইউটিউব কমেন্ট বক্সেও দর্শকরা নানা ধরনের প্রতিক্রিয়া জানান। দেশীয় নাটকের কুরুচিপূর্ণ নাম, অশ্লীল দৃশ্য ও সংলাপ এখন যেন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে! একটা সময় ‘সকাল সন্ধ্যা’, ‘অয়ময়’, ‘রূপনগর’, ‘শুকতারা’, ‘কোথাও কেউ নেই’, ‘আজ রবিবার’, ‘আমাদের নুরুল হুদা’, ‘রঙের মানুষ’, ‘দ্বিতীয়জন’ এমন সুন্দর সুন্দর নামের নাটক তৈরি হতো। কিন্তু এখন কুরুচিপূর্ণ  টাইটেলের নাটকে ভরপুর চ্যানেল থেকে শুরু করে ইউটিউব। সাম্প্রতিক কিছু নাটকের নাম শুনলেই চোখ কপালে উঠবার কথা! এগুলোও নাটকের নাম? এসব নামের মধ্যে রয়েছে- ‘প্লেবয়’, ‘ফাউ গার্ল’  ‘গার্লফ্রেন্ডের চাপ’ ‘এক্সটা বয়ফ্রেন্ড’, ‘দুদু মিয়া’, ‘বাবু খাইছো’ ‘বউ তো নয় যেন সিসি ক্যামেরা’, ‘খাটো জামাই’, ‘চুরি করা গার্লফ্রেন্ড’, ‘ডেঙ্গু নাসির’, ‘বাবার ফান্দে ছেলে কান্দে’, ‘কলাগাছ চ্যাম্পিয়ন’, ‘বেড সিন’, ‘সেন্ড মি নুডস’, ‘মফিজের লাইফ স্টাইল’ প্রভৃতি।
নাটকগুলোর এমন নাম শুনে রীতিমতো বিস্ময় ও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন নাট্যজনেরা। এ সময়ের কয়েকজন পরিচালকও এ ধরনের নামের বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। অনেকে নাটকের এমন উদ্ভট ও অরুচিকর নামকরণকে পরিচালকদের সৃজনশীলতা ও শিক্ষার অভাবকে দায়ী করছেন। এ ছাড়া অনেক জনপ্রিয় তারকার নাটকেও দেখা যায় অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি। বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল ও সুড়সুড়ি দৃশ্য দিয়ে দর্শককে আকৃষ্ট করার প্রতিযোগিতা চলছে এই সময়ের অনেক নাট্য নির্মাতার মধ্যে। এদিকে বেশি ভিউয়ের লক্ষ্যে এসব নাটকে অশ্লীল সংলাপও জুড়ে দেয়া হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ের জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’র একটি সংলাপ এমন- ‘নেহাল কি যাবার আগে তোরে কিছু করি গেছেনি/দেখা গেল যাওয়ার আগে বাজায় দি থুই গেছে। সংলাপটি অভিনেতা ‘কাবিলা’ খ্যাত পলাশকে দেখা যায় অভিনেত্রী সাবিলা নূরকে বলতে। ‘লিস্ট’ শিরোনামের একটি সিরিয়ালে অভিনেতা তৌসিফ মাহবুবের মুখে শোনা যায় ‘ভাই সেই রকম মাল’ শীর্ষক সংলাপ। মডেল-অভিনেত্রী নায়লা নাঈমকে উদ্দেশ্য করে নাটকে সংলাপটি ব্যবহার করা হয়। অনেকেই বলেন নাটকে অশ্লীলতা শুরু ‘আবাসিক হোটেল’ শিরোনামের একটি নাটকের মধ্য দিয়ে। এটি ২০১৭ সালে ইউটিউবে আসে। তারপর থেকে নাটকে অশ্লীলতা বাড়তে শুরু করে। সাম্প্রতিক সময়ে ‘ব্যাচেলর ট্রিপ’, ‘মিশন বরিশাল’, ‘শোবার ঘর’, ‘টক ঝাল মিষ্টি’, ‘লিভিং একসাথে’, ‘দুদুমিয়া’সহ বেশকিছু নাটকে মাত্রাতিরিক্ত অশ্লীল সংলাপ ও দৃশ্য দেখা যায়। ইউটিউবে বেশি ভিউয়ের জন্যই আজকাল নির্মাতারা এমন নাটক নির্মাণ করছেন বলেও নাট্যবোদ্ধাদের মত। বিষয়টি নিয়ে বরেণ্য অভিনেতা ও নির্মাতা আবুল হায়াত বলেন, এসব নিয়ে আর কতো বলবো। কিছু মানুষের কারণে আজ আমাদের এমন নাটক দেখতে হচ্ছে। নাটকের সৌন্দর্য নষ্ট করছে তারা। আমাদের নাটকের নিজস্ব ভাষা আছে। সংস্কৃতির সঙ্গে মিল রেখেই আমাদের নাটক নির্মাণ হতো। কিন্তু এখন এসবের কোনো হিসাবনিকাশ নেই। যে যার মতো নির্মাণ করছে। জনপ্রিয় অভিনেতা ও নির্মাতা সালাউদ্দিন লাভলু বলেন, আগে যারা নাটক রচনা ও নির্মাণ করতো তাদের অবস্থান এবং এখনকার নির্মাতা ও রচনাকারীদের অবস্থান এক নয়। এখন অনেকের শিল্পের প্রতি দায়বদ্ধতা নেয়। যদি তাদের মধ্যে শিল্প যোগ্যতা থাকতো তাহলে নাটকে এমন সংলাপ ব্যবহার করতো না। এমন উদ্ভট নামও ব্যবহার করতো না। ২০১৫ সালের পর থেকে আমাদের নাটকে ধস নামতে শুরু করে। সেটি এখন বেড়েই যাচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর