× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

যুক্তরাজ্যের প্রবাসীদের নিয়ে সিলেটে উৎকণ্ঠা

শেষের পাতা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে
১৭ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার

যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের নিয়ে দুশ্চিন্তা বাড়ছে সিলেটের স্বজনদের। প্রতিদিনই আসছে মৃত্যুর খবর। সকাল হলেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে খবর। স্বজন হারানোর শোকে কাতর হয়ে পড়েছেন দেশে থাকা স্বজনরা। যুক্তরাজ্যে বসবাসকারী স্বজনদের নিয়ে অতীতে এতো দুশ্চিন্তায় পড়তে হয়নি দেশের স্বজনদের। করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেইনে কাবু  গোটা যুক্তরাজ্য। পরিস্থিতি দিন দিন নাজুক হচ্ছে। মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে।
করোনার শুরুতেও এমন কঠিন অবস্থায় পড়তে হয়নি যুক্তরাজ্যে থাকা প্রবাসীদের। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যুক্তরাজ্যজুড়ে সিলেটিরাও আক্রান্ত হচ্ছে। যুক্তরাজ্যে এখন সিলেটিদের ঘরে ঘরে করোনার প্রকোপ। দেশের স্বজনরা জানিয়েছেন- গত বছরের ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে করোনার শুরুতে যুক্তরাজ্যে যারা মৃত্যু বরণ করেছিলেন তারা অনেকেই ছিলেন বৃদ্ধ। কিন্তু এখন মৃতদের তালিকায় যুক্ত হচ্ছে যুবকরা। করোনা নতুন স্ট্রেইনে সবারই অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ। দেশে আসতে চাইছেন অনেক প্রবাসী। কোয়ারেন্টিনের ভয়ে আসতে চাইছেন না। আবার করোনা পজেটিভ হলেও তাদের আসতে দেওয়া হচ্ছে না। এই অবস্থায় যুক্তরাজ্যে থেকেই প্রবাসীদের করোনার সঙ্গে তীব্র লড়াই করছেন। যুক্তরাজ্য থেকে সম্প্রতি দেশে এসেছেন ফখরুল ইসলাম নামের এক লন্ডন প্রবাসী। তিনি জানিয়েছেন- লন্ডন, মানচেষ্টার, বার্মিংহাম, লুটন সহ সব এলাকায় বসবাসকারী প্রবাসীরাও ঘরে ঘরে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। যাদের শ্বাসকষ্ট তীব্র হচ্ছে তাদের হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। আবার অনেকেই বাসায় আইসোলেশনে থেকে সুস্থ হচ্ছেন। তিনি জানান- এই অবস্থা আরো কিছু দিন চললে হাসপাতালগুলোতে জায়গা হবে না। দেশে আসা রোকেয়া বেগম নামের আরেক লন্ডন প্রবাসী মহিলা জানিয়েছেন- অনেকেই এই অবস্থায় দেশে আসতে চাইছেন। কিন্তু কোয়ারেন্টিনের ভয়ে আসতে পারছেন না। আবার করোনা পজেটিভ হয়ে যাওয়ায় ইচ্ছে থাকা সত্বেও কেউ বৃটেনের বাইরে বের হতে পারছেন না। যুক্তরাজ্যে করোনা ভাইরাসে কত সিলেটি মারা গেছেন- এর কোনো সুনির্দ্দিষ্ট পরিসংখ্যান এখনো মিলেনি। তবে প্রবাসীরা জানিয়েছেন- ইতিমধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কয়েকশ’ প্রবাসী মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। করোনা দ্বিতীয় স্ট্রেইনে এখন প্রতিদিনই অনেকের মৃত্যু হচ্ছে। তাদেরও সঠিক কোনো পরিসংখ্যান মিলছে না। এদিকে- করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা  গেছেন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার শ্রীরামসি গ্রামের আপন দুইভাই। মাত্র ১০ ঘণ্টার ব্যবধানে করোনায় তাদের মৃত্যু হয়েছে। তাদের একজন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি আবু লেইস মিয়া ও অন্যজন যুক্তরাজ্যর কমিউনিটি নেতা আকদ্দুস আলী। স্বজনেরা জানান, লন্ডন শহরে বসবাসকারী আবু লেইস মিয়া গতকাল শুক্রবার সকালে করোনায় মারা যান। এরপর সন্ধ্যায় ছোট ভাই আকদ্দুস আলীও করোনায় মারা যান। এ দুই ভাইয়ের স্বজন জগন্নাথপুরের মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মাহবুব হোসেন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন- তারা দুই ভাই যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশে রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে ভূমিকা রাখায় পরিচিত ছিলেন। ১০ ঘণ্টার ব্যবধানে তাদের মৃত্যু হওয়ায় আত্মীয়স্বজন, পরিবার-পরিবজন সবার মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক জানিয়েছেন- রাজনৈতিক ও সামাজিক অঙ্গনে তাদের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য থাকায় তাঁদের মৃত্যুতে সবাই শোকাহত। যুক্তরাজ্যে বসবাসরত সিলেটিদের এমন দু:সময় নিয়ে দেশের স্বজনদের উদ্বেগ, উৎকন্ঠার অন্ত নেই। প্রবাসীদের সুস্থতা কামনা করে চলছে দোয়া মাহফিল। গত শুক্রবারের জুম্মাতে সিলেটের সব মসজিদের করোনা আক্রান্ত প্রবাসী ও দেশের মানুষের সুস্থতা কামনা করে দোয়া করা হয়। গত সপ্তাহে সিলেটের কাজিরবাজার মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে বিশেষ দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। করোনা আক্রান্ত যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের সুস্থতা কামনা করে মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা সামিউর রহমান মুছার উদ্যোগে এই মাহফিলের আয়োজন করা হয়।
ওসমানীনগর (সিলেট) প্রতিনিধি জানান, যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে ওসমানীনগর উপজেলার দুই প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোর ৬টায় এবং সাড়ে ৬টার দিকে লন্ডনের বিভিন্ন হাসপাতালে তারা মৃত্যুবরণ করেন। মৃত প্রবাসীরা হলেন, সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার উমরপুর ইউনিয়নের হামতনপুর গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী চিকন মিয়া (৬০) এবং একই উপজেলার বুরুঙ্গা ইউপি’র উত্তর তিলাপাড়া গ্রামের বদরুল ইসলাম (৪৪)। এ দিকে একদিনে যুক্তরাজ্যে দুই প্রবাসীর মৃত্যুতে নিজ নিজ এলাকাসহ গোটা ওসমানীনগর জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। প্রবাসী অধ্যুষিত ওসমানীনগর উপজেলার ব্যাপক সংখ্যক প্রবাসী যুক্তরাজ্য,যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন।করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত অনেক প্রবাসী মৃত্যুবরণ করেছেন। বর্তমানে অনেকেই অসুস্থ রয়েছেন। দুই প্রবাসীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন, যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতা মতছির চৌধুরী জনি ও উমরপুর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মতিউর রহমান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Syed
১৬ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার, ৫:৩৭

একমাত্র মা বাবা ছাড়া বাকিরা টাকার জন্যে

অন্যান্য খবর