× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রবিবার

আনোয়ারায় বড় ভাইয়ের রোষাণলে গৃহহীন ৩ ভাই

বাংলারজমিন

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
১৮ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার

 নূর মুহাম্মদ, ইয়ার মুহাম্মদ, মৃত আবু তাহের, আব্দুর রহিম। সম্পর্কে তারা আপন ৪ ভাই। পারিবারিকভাবে পৃথক হয়েছে প্রায় ২০ বছর। ভাগ হয়নি পারিবারিক ভিটেবাড়িসহ জায়গা-জমি। আর এই বিরোধের জের ধরে বড় ভাইয়ের রোষণালে পড়েছে আপন ছোট ৩ ভাই। বিগত দুই মাস যাবৎ ঘরহীন আপন ৩ ছোট ভাই। বড় ভাইয়ের টাকা পয়সার কাছে হার মেনে অসহায় হয়ে পড়েছে মৃত ছোট ভাইয়ের বিধবা স্ত্রীও। ঘর নেই দুই মাস।
তার উপর মামলা-হামলার ভয়ে মানুষের ঘরে ঘরে ঘুরছে ৩ পরিবার। এমনি দুঃসহ দিন কাটছে আনোয়ারা উপজেলার ৩নং রায়পুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ফকির মোহাম্মদ বাড়ির তিনটি পরিবারের। জানা যায়, দুই মাস আগে নিজের জায়গা উদ্ধার করবে বলে পুরাতন বসতঘর ভেঙে ফেলে বড় ভাই নূর মুহাম্মদ। পরে সালিশি বৈঠক ডাকলে নূর মুহাম্মদ বৈঠক এড়িয়ে চলে। স্থানীয় প্রভাবশালী মহলকে হাতে নিয়ে পুরাতন বাড়ি থেকে চলে যেতে বাধ্য করছে বাকি ৩ ভাইকে। ৩ ভাইয়ের অভিযোগÑ নূর মুহাম্মদ পুরো ভিটেবাড়ি দখল করতে নানা কূটকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে। বসতঘর ভেঙে ফেলায় গৃহহীন হয়ে পড়েছে তারা। এমনকি তাদের উপর রুজু করেছে একাধিক সাজানো মামলা। যেখানে পাচ্ছে সেখানে করছে মারধর। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বললে তারা জানায়, নূর মুহাম্মদের টাকা পয়সা হলে সে অন্যত্র চলে যায়। বেশ কিছুদিন ধরে ভাইদের সঙ্গে নানা ঝামেলা করে যাচ্ছে। আমরা একাধিকবার সালিশি বৈঠক ডেকেছি কিন্তু এসবের কিছুরই সে তোয়াক্কা করে না। উল্টো ছোট ৩ ভাইয়ের পরিবারকে নানাভাবে হয়রানি করে যাচ্ছে। আমরা তার সঙ্গে মীমাংসার কথা বললে সবকিছু ঠিক বলে পরক্ষণে আবার ৩ পরিবারের উপর মামলা রুজু করে। ৩নং রায়পুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের স্থানীয় ইউপি সদস্য ইসহাক বলেন, নূর মোহাম্মদ কোনো কিছুর তোয়াক্কা করে না। আইন, সামাজিকতা সে কিছুই বোঝে না। আমি একাধিকবার কথা বলেছি সে বিষয়টি এড়িয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে আমিও বিব্রতকর অবস্থায় আছি। বিশেষ করে বিধবা মহিলাটি গৃহহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। আমি মনে করি চেয়ারম্যানকে অবহিত করা ছাড়া আমার আর করার কিছুই নেই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর