× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

পুঠিয়ায় গৃহবধূকে শ্লীলতাহানি ২০ হাজারে মীমাংসার চেষ্টা

বাংলারজমিন

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি
২১ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

রাজশাহীর পুঠিয়ায় ফাঁকা বাড়িতে গৃহবধূকে (২৮) ষষ্ঠি সরকার নামে স্থানীয় একজন কাপড় ব্যবসায়ী শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় একটি মহল ২০ হাজার টাকায় আপস করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। পরে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
ষষ্ঠি সরকার উপজেলার ঝলমলিয়া বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী ও একই এলাকার সম্ভু চরণ শীলের ছেলে। গত সোমবার সকালে প্রতিবেশী ওই গৃহবধূর বাড়িতে শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটে।
ভুক্তভোগীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় গত ১১ই জানুয়ারি সকালের দিকে বাড়ির লোকজন যে যার মতো কাজে চলে যায়। এ সময় ফাঁকা বাড়িতে ওই গৃহবধূকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করছিল প্রতিবেশী ষষ্ঠি সরকার। তখন ওই গৃহবধূ চিৎকার শুরু করলে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসেন। ষষ্ঠি সরকার পালিয়ে যায়।
এ বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে ষষ্ঠি সরকার স্থানীয় প্রভাবশালীদের মাধ্যমে ওই পরিবারকে চাপ দিতে থাকে। একপর্যায়ে ওই গৃহবধূ ১৯ই জানুয়ারি সকালে নারী নির্যাতন আইনে থানায় একটি অভিযোগ দেন। এ খবর পেয়ে ওই প্রভাবশালী মহল গত রাতেই একটি সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে ভুক্তভোগীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে দেবেন বলে আশ্বাস দেন।
 
পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মানিক মণ্ডল বলেন, গৃহবধূকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় গতরাতে একটি সালিশ বসেছিল। সালিশকারীরা ভুক্তভোগী ওই পরিবারকে কিছু জরিমানা আদায় করে দিবেন এমন ঘটনা শুনেছি। আবার ওই গৃহবধূ থানায় লিখিতভাবে নারী নির্যাতনের একটি অভিযোগ করেছেন।
তবে ষষ্ঠি সরকার বলেন, ওই গৃহবধূর সঙ্গে শ্লীলতাহানি নয়, তার সঙ্গে আর্থিক লেনদেন বিষয় রয়েছে। যা ১৯শে জানুয়ারিী রাতে এলাকায় বসে একটি আপস মীমাংসা করা হয়েছে। আর থানায় অভিযোগ দেয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই।
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার ওই ভুক্তভোগী গৃহবধূ শ্লীলতাহানির একটা অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগটি এখন তদন্তাধীন রয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।  

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর