× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১ মার্চ ২০২১, সোমবার

সানোফির সিংহভাগ শেয়ার অধিগ্রহণ করছে বেক্সিমকো ফার্মা

প্রথম পাতা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার
২২ জানুয়ারি ২০২১, শুক্রবার

দেশের শীর্ষস্থানীয় ওষুধ প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড (বেক্সিমকো ফার্মা) সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেডের সংখ্যাগরিষ্ঠ (৫৪.৬%) শেয়ার অধিগ্রহণের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। সূত্র জানায়, সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড ফ্রেঞ্চ ফার্মাসিউটিক্যালস জায়ান্ট সানোফির একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। ২০১৯ সালে সানোফি বিশ্ববাজারে ৩৬ বিলিয়ন ডলারের বেশি পণ্য বিক্রয় করে। সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেডে সানোফি গ্রুপের বর্তমানে ৫৪.৬% শেয়ার রয়েছে। অবশিষ্ট প্রায় ২৫.৩৬% বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে শিল্প মন্ত্রণালয় এবং ১৯.৯৬% বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের অধীনে রয়েছে।
প্রস্তাবিত চুক্তিটি বাংলাদেশ সরকারের ছাড়পত্র (ফরেন এক্সচেঞ্জ ইনভেস্টমেন্ট ডিপার্টমেন্ট ও বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক ক্রয়-বিক্রয়ের অর্থ লেনদেনের অনুমতিসহ) এবং চূড়ান্ত ক্রয় চুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী ৩ থেকে ৯ মাসের মধ্যে চুক্তিটি সম্পন্ন হবে।
জানা গেছে, সানোফি একটি প্রসিদ্ধ বহুজাতিক কোম্পানি, যা ১৯৫৮ সালে ‘মে অ্যান্ড বেকার’- নামে বাংলাদেশে ব্যবসা শুরু করে। পরবর্তীতে ২০০৪ সালে সানোফি-অ্যাভেন্টিস গ্রুপে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে একীভূত হয়।
২০১৩ সালে কোম্পানিটির নাম বদলে সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড রাখা হয়। টঙ্গীতে কোম্পানিটির একটি অত্যাধুনিক ওষুধ তৈরির কারখানা রয়েছে। তাছাড়া আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের বিভিন্ন ভ্যাকসিন, ইনসুলিন ও কেমোথেরাপির নানা ওষুধ সানোফি বাংলাদেশে আমদানি করে থাকে। হৃদরোগ, ডায়াবেটিকস, টিউমার চিকিৎসা, চর্মরোগ এবং সিএনএসে সানোফির ওষুধ বহুলভাবে ব্যবহৃত হয় এবং কোম্পানির বহুল প্রচলিত ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে লান্টাস, এপিড্রা, ফিমোক্সিল, ফ্লাজিল, এভিল, এন্টারোজারমিন উল্লেখ্য।
এই অধিগ্রহণ বেক্সিমকো ফার্মার জন্য একটি শক্তিশালী কৌশলী পদক্ষেপ। যার ফলে দীর্ঘমেয়াদে উভয় কোম্পানির জন্যই নতুন নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। এ ছাড়া এই চুক্তির মাধ্যমে কোম্পানির টেকসই প্রবৃদ্ধির ভিত মজবুত হবে ও আন্তর্জাতিক বাজারে কোম্পানির সুনাম বৃদ্ধি পাবে। এই অধিগ্রহণের ফলশ্রুতিতে বেক্সিমকো হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, চর্মরোগ চিকিৎসার ওষুধ এবং ভ্যাকসিন বাজারজাতকরণের মাধ্যমে নিজেদের উপস্থিতি ও অবস্থান আরো সুদৃঢ় করতে পারবে। এই চুক্তির আওতায় বেক্সিমকো ফার্মা তাদের টঙ্গীস্থ কারখানার সন্নিকটে ২৫ একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত পিআইসি/এস অনুমোদনযোগ্য একটি সেফালোস্পিরিন এন্টিবায়োটিক তৈরির কারখানাসহ অন্যান্য ওষুধ তৈরির কারখানার মালিকানা পাবে। সানোফির ভবিষ্যৎ আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডগুলো বাংলাদেশে বিপণনের ক্ষেত্রেও অগ্রাধিকার সুনিশ্চিত হবে এই চুক্তির মাধ্যমে।
সানোফির সুষম ও ক্রমবর্ধমান পোর্টফলিও বেক্সিমকোর বর্তমান পোর্টফলিওকে আরো শক্তিশালী ও প্রসারিত করবে, যা ভবিষ্যতে কোম্পানির বিকাশ, সহজলভ্য ওষুধ ও অত্যাধুনিক চিকিৎসার প্রতিশ্রুতিকে জোরদার করবে।
বেক্সিমকো ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান এমপি বলেন, আমরা সানোফি বাংলাদেশের প্রস্তাবিত অধিগ্রহণ সম্পর্কে জানাতে পেরে খুবই আনন্দিত। এটি আমাদের কোম্পানির ইতিহাসে দ্বিতীয় অধিগ্রহণ। ইতিপূর্বে ২০১৮ সালে বেক্সিমকো ফার্মা নুভিস্তা ফার্মা (আগের অরগানন বাংলাদেশ) লিমিটেড অধিগ্রহণ করে। সানোফি বাংলাদেশের এই অধিগ্রহণ সানোফির শক্তিশালী অবস্থান রয়েছে এমন সব থেরাপি সমূহে কোম্পানির অবস্থান মজবুত করবে, যা ভবিষ্যতে কোম্পানির টেকসই প্রবৃদ্ধির ভিত হিসেবে কাজ করবে। আমরা বিশ্বাস করি যে, সানোফির অনন্য ও বৈচিত্র্যময় পোর্টফলিও আমাদের বিদ্যমান পণ্য পরিসীমাকে বিস্তৃত ও পরিপূর্ণ করবে এবং কোম্পানির জন্য উল্লেখযোগ্য পরিমাণে রাজস্ব আয় বৃদ্ধি করবে।
বেক্সিমকো ফার্মা দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় ওষুধ প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান। আমেরিকা, ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়াসহ বর্তমানে বেক্সিমকো ফার্মা বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে ওষুধ রপ্তানি করে। বেক্সিমকো ফার্মার শেয়ার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন হয় এবং এর জিডিআর শেয়ার লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জের অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট মার্কেটে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর