× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১ মার্চ ২০২১, সোমবার

কারাগারে তুষারকে পাঁচ বছর ধরে একান্তে সঙ্গ দিয়ে আসছিলেন সুইটি

প্রথম পাতা

মরিয়ম চম্পা
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার

গত পাঁচ বছর ধরে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি হলমার্ক গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) তুষার আহমদকে দফায় দফায় সাক্ষাৎ করে সঙ্গ দিয়ে আসছিলেন ওই নারী। তার পুরো নাম আসমা শেখ সুইটি। হঠাৎ করে তাদের একান্ত ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ্যে আসায় অনেকটা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন ওই নারী। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজধানীর সবুজবাগের নিজ বাসায় মা এবং ছেলেকে নিয়ে বসবাস করেন সুইটি। তার গ্রামের বাড়ি ফেনীর ছাগলনাইয়ায়। সুইটির বাবা গ্রামের বাড়িতে থাকেন। মাঝে মধ্যে ঢাকায় এসে বেড়িয়ে যান। সূত্র জানায়, মুঠোফোনে তুষারের সঙ্গে তার পরিচয়।
পরবর্তীতে তারা গোপনে বিয়ে করেন। কারা বন্দি তুষারের প্রথম পক্ষের স্ত্রী এবং দুই সন্তান রয়েছে। ২০১২ সালে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তারের পর তুষার আহমেদ কারাগারে থাকায় তার প্রথম স্ত্রী নাজনিন সুলতানা মিষ্টি দুই সন্তানকে নিয়ে মালয়েশিয়ায় চলে যান। প্রথম স্ত্রী এবং তার পরিবারের সদস্যরা তুষারের সঙ্গে সুইটির বিয়ের বিষয়টি জানেন না। সূত্র জানায়, কারাগারের ঊর্ধ্বতন একাধিক কর্মকর্তার সহযোগিতা নিয়ে কারাগারেই তারা একান্তে বহুবার মিলিত হওয়ার সুযোগ পেতেন। বিনিময়ে আর্থিক সুযোগ-সুবিধার পাশাপাশি মিলতো বড় অঙ্কের উপঢৌকন।
সূত্র জানায়, এর আগে সুইটি একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত ছিলেন। পরবর্তীতে চাকরি ছেড়ে টাকা জমিয়ে অনলাইন ব্যবসা শুরু করেন। বর্তমানে পেশায় তিনি একজন ব্যবসায়ী। হাতিরঝিল সংলগ্ন পুলিশ প্লাজা কনকর্ড শপিং সেন্টারের ৪র্থ তলায় রয়েছে তার একটি ফ্যাশন হাউজ। বিউটি বাজ নামের এই ফ্যাশন হাউসটি ২০১৯ সালে চালু করেন তিনি। বর্তমানে সেখানে তিনজন কর্মী কর্মরত আছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, কারা কর্তৃপক্ষের তদন্ত কমিটির কাছে সুইটিকে নিজের স্ত্রী বলে দাবি করেছেন তুষার। তুষারের দাবি, বিয়ের আগে সুইটির সঙ্গে কারাগার থেকে মোবাইল ফোনে নিয়মিত কথা বলতেন দু’জনে। ফোনেই সুইটির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তুষারের। পরবর্তীতে মুঠোফোনে তাদের বিয়ে হয়। তাদের বিয়ের বিষয়টি নিশ্চিত হতে একাধিক কারাবন্দির সাক্ষাৎকার নিয়েছে তদন্ত কমিটি। সূত্র জানায়, তুষারের সঙ্গে আগে নিয়মিত কাশিমপুর কারাগারে সাক্ষাতে যেতেন সুইটি। করোনার কারণে সম্প্রতি তুলনামূলকভাবে কম যেতেন।
সূত্র জানায়, এই ঘটনার পর সুইটি মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙে পড়েছেন। কারো সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলেন না। ভিডিও ফুটেজ ও টেলিভিশনে যখন দেখায় তখন সে কাছের মানুষদের সঙ্গে ফোনে কান্নায় ভেঙে পড়েন। সুইটির ঘনিষ্ঠজন জানায়, ওইদিন তিনি ফোন দিয়ে বলেন, আমাকে টিভিতে দেখাচ্ছে। গত পাঁচ বছর ধরে স্বামী তুষারের সঙ্গে নিয়মিত দেখা করছি। কিন্তু হঠাৎ করে কেন ওই দিনের ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ পেলো। গত পাঁচ বছরের ভিডিও ফুটেজ এবং নথি কেন প্রকাশ করা হচ্ছে না। নিশ্চয়ই এর পেছনে কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে।
এদিকে, গাজীপুরের কাশিমপুরে গত ৬ই জানুয়ারি কারাগারে প্রবেশপথে কর্মকর্তাদের কার্যালয় সংলগ্ন এলাকায় কালো রঙের জামা পরে স্বাচ্ছন্দ্যে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায় হলমার্কের মহাব্যবস্থাপক ঋণ কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত (জিএম) তুষারকে। কিছু সময় পর বাইরে থেকে বেগুনি রঙের সালোয়ার কামিজ পরে সেখানে প্রবেশ করেন সুইটি। দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে সে কারাগার থেকে বেরিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত কারা কর্মকর্তাদের সবাই কারাগারেই অবস্থান করছিলেন। কারা সূত্র জানায়, মহিলাসহ তিনজন কারাগারের অফিস কক্ষে প্রবেশ করেন ৬ই জানুয়ারি ১টা ৫৬ মিনিটে। কারা সেল থেকে হলমার্ক কেলেঙ্কারির অন্যতম হোতা তুষার কারা অফিস কক্ষে আসেন ২টা ৪ মিনিটে। এরপর জেল সুপার রত্না রায় অফিস কক্ষ থেকে বের হয়ে যান ২টা ১৫ মিনিটে। কারা অফিসের একটি কক্ষে টানা ৪৫ মিনিট অবস্থান করেন তুষার ও সুইটি। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার-১ এর তিন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। দু’টি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কারা কর্তৃপক্ষ।
কাশিমপুর কারাগারের সুপার ও জেলার প্রত্যাহার
স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে জানান, সাজাপ্রাপ্ত আসামির সঙ্গে কারাগারে নারীর সময় কাটানোর ঘটনায় সিনিয়র জেল সুপার ও জেলারকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এর  আগে ডেপুটি জেলারসহ তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল।
কারাগারে নারীর সঙ্গে হলমার্ক কেলেঙ্কারির সাজাপ্রাপ্ত বন্দি তুষারের সঙ্গে সময় কাটানোর ঘটনায় কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের পার্ট-১-এর সিনিয়র জেল সুপার রত্না রায় ও জেলার নুর মোহাম্মদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় এই নিয়ে মোট ৫ জনকে প্রত্যাহার করা হলো।
গতকাল দুপুরে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, প্রত্যাহার হওয়া সুপার ও জেলার এরইমধ্যে তাদের দায়িত্ব হস্তান্তর করেছেন। এ ছাড়াও এই বিষয়ে জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি তদন্ত শেষে তাদের সুপারিশমালা দ্রুত সময়ের মধ্যে জমা দিবেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
palashbishwas
৩১ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার, ১২:০০

বেশি বেশি রত্নার মত মহিলা জেলার নিয়োগ দেওয়া হোক। এরাই একটা ব্যবস্থা করে দিবে? এদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া দরকার।

Md Shamsul Islam
২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১:২৭

দীর্ঘ মেয়াদী সাজা প্রাপ্ত কয়েদীদের এ কমপক্ষে মাসে ১ -২ দিন ৬ ঘন্টার জন্য নিজন্ব ফ্যামিলির সঙ্ঘে সময় কাটানোর ব্যবস্থা করা দরকার। আর হাজতি কয়েদীদের আলাদা সেল করে তাদেরকে ফ্যামিলীর সঙ্গে মাসে ৪-৫ দিন ২৪ ঘন্টার জন্য সময় কাটানোর ব্যবস্থা করা উচিত।

মোঃ ইমরান মন্ডল
২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ৯:১৮

টাকার কাছে সবাই অসহায় । এতে মানুষের কোন দোষ আমি দেখছিনা কারন ? । এখন কার বাবা মা সন্তান কে ছোট ব্যালা থেকে এমন শিক্ষা দিচ্ছে জেন সেই সন্তানের দুনিয়াতে আসার একটাই কারন তা হলো টাকা উপারর্যন করা । সেই খের্ত্রে এটা কোন ?????

mafijur
২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১২:০৮

ক্ষমতা নাগালের বাহিরে,

Ainul
২৬ জানুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার, ৪:৪৯

আমরা এমন দেশে বাস করি, যে জেলখানায় থেকে মোবাইলে প্রেম করে বিয়ে হয়।

রায়হান খান
২৬ জানুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার, ৩:৩৭

কারাবন্দী অবস্থায় এইসব স্পর্শকাতর বিষয় খুব ভাবায়।কিন্তু জৈবিক চাহিদা কি আর কোন বাধা নিষেধ মানে!

মায়ের দোয়া
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার, ১০:০৭

টাকার ভাগ ভাটোয়ারায় সমষ্য হওয়ায় খবরটি মিডিয়ায় চাউর হইল বলে মনে হয়।

Quazi Nasrullah
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার, ৯:২৭

মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন

আব্দুল জব্বার
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার, ৬:৫৩

প্রতিবাদটি ভালো লাগেনি৷ এভাবে কোন নারীর ব্যক্তিগত গোপনীয় তথ্য প্রকাশ কতটা যুক্তিযুক্ত তা ভেবে দেখতে হবে৷।

Helaluddin
২৪ জানুয়ারি ২০২১, রবিবার, ৬:৩৮

তোমরা নারীদের ঘরে রাখতে চাওনা কিন্তু এখন তাদের চেহারাতে আবরন দেও কেন

Hossain md pear
২৫ জানুয়ারি ২০২১, সোমবার, ১২:৩২

মানবজমিন এর নিউজটি পড়ার পর মনে হল টাকার ভাগ তারা ও পাইছে। স্টপিড।

অন্যান্য খবর