× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রবিবার

ভালো আছেন সাকিব...তবে!

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
২৭ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার

ঘটনা, সোমবার চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৃতীয় ও সিরিজের শেষ ম্যাচে। উইন্ডিজ ইনিংসের ৩০তম ওভারে নিজের বলে ফিল্ডিং করতে গিয়ে কুঁচকিতে টান লাগে সাকিব আল হাসানের। ব্যথা সহ্য করতে না পেরে মাঠ ছাড়েন ফিজিও জুলিয়ান ক্যালাফাতোর সঙ্গে। এরপর আর ফেরা হয়নি। অবশ্য তাতে টাইগারদের ১২০ রানের বড় জয়ে কোনো প্রভাব পড়েনি। তবে এখন তাকে নিয়ে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। ওয়ানডে সিরিজসেরা এই অলরাউন্ডার শেষ পর্যন্ত টেস্টে মাঠে নামতে পারবেন তো! ৩রা ফেব্রুয়ারি জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে গড়াবে সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচ।  টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের মিশনে দলের সেরা খেলোয়াড়কে পাওয়া নিয়ে চিন্তাতো হবেই। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) চিকিৎসক মঞ্জুর হোসাইন চৌধুরী জানিয়েছেন সাকিব এখন আগের চেয়ে ভালো আছেন।
স্ক্যান করালে বোঝা যাবে শেষ পর্যন্ত কি হয়! দৈনিক মানবজমিনকে তিনি বলেন, ‘সাকিব আল হাসান আগের চেয়ে ভালো আছেন।  কুঁচকির চোট নিয়ে তিনি আমাদের জানিয়েছেন যে আগের চেয়ে ভালো বোধ করছেন। আমরা এখনো তার স্ক্যান করায়নি। যদি প্রয়োজন হয় আগামীকাল (আজ) সেটি করাবো। অবশ্য আজ (গতকাল) রাতটাই আমরা তাকে দেখবো।’ অন্যদিকে প্রশ্ন ওঠেছে সাকিব শেষ পর্যন্ত টেস্টে ফিট আবস্থায় মাঠে ফিরতে পারবেন কিনা। বা তার সুস্থ হয়ে উঠতে কতদিন লাগতে পারে। এ বিষয়ে বিসিবি চিকিৎসক বলেন, ‘আমরা প্রয়োজন হলে স্ক্যান করাবো। আর তা না লাগলে আশা করি তিনি দ্রুত মাঠে ফিরবেন। বিষয়টি হচ্ছে স্ক্যান করানো প্রয়োজন হলে সেই রিপোর্ট পাওয়ার পরই বলা যাবে তার অবস্থা। আমরা সাকিবকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি।’ এক বছর নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে মাঠে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান। শুধু তাই নয়, তিনি দেশের হয়ে শেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছিলেন ২০১৯ এ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে জুলাইয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে। লম্বা সময় পর মাঠে ফেরায় তাকে নিয়ে ছিল শঙ্কা। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিশ্বের সেরা এই অলরাউন্ডার ফিরেছেন স্বরূপেই। জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৪.৫ ওভার বল করে ১২ রানের বিনিময়ে উইকেট শূন্য থেকেছেন সাকিব। তবে মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে প্রথম ম্যাচে ব্যাট হাতে জড়তা দেখা গেছে সাকিবের মধ্যে। কিন্তু বোলিংয়ে রেকর্ড গড়েছেন। ৭.২ ওভার বোলিং করে মাত্র ৮ রান খরচায় ৪টি উইকেট নিয়েছিলেন।  দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে ৪৩ রান করে অপরাজিত ছিলেন। সোমবার তৃতীয় ওয়ানডেতে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন। সব মিলিয়ে তিন ম্যাচে করেছেন ১১৬ রান। সিরিজে রান তোলার হিসেবে যা তৃতীয়। আর বল হাতে তিন ম্যাচে নিয়েছেন ৬ উইকেট, যা উইকেট সংগ্রহের হিসেবে সিরিজের দ্বিতীয় সেরা। আর সেই কারণেই মাঠে ফিরেই সিরিজ সেরা তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর