× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, রবিবার

বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী আটক

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে
(১ মাস আগে) জানুয়ারি ২৭, ২০২১, বুধবার, ২:৪৪ অপরাহ্ন

কেন্দ্র দখল ও ভোট জালিয়াাতিকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের ৩৪ নং পাথরঘাটা ওয়ার্ডের একটি ভোট কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থীর অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ বিএনপি সমর্থিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ইসমাইল হোসেন বালিকে আটক করে। বুধবার ১২টার দিকে পাথরঘাটা বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনায় ওই কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। বালিকে আটকের ঘটনায় থানার সামনে অনুসারী সমর্থকরা ৩০ মিনিট ধরে অবস্থান নেন। পুলিশ তাদেরকে ফটক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে ধস্তাধস্তি হয়। এ সময় একটি বাসও ভাঙচুর করা হয়। নাসরিন আক্তার নামে বালির একজন এজেন্ট বলেন, কেন্দ্রের গোপন কক্ষে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা  জালিয়াতি করে জোরপূর্বক পছন্দের প্রতীকে ভোট নিচ্ছিল।
এর প্রতিবাদ করায় পুলিশ আমাদেরকে মারধর করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়। এ সময় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর অনুসারীরাা আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে সংঘর্ষ শুরু হয়। একপর্যায়ে কে বা কারা ভোটকেন্দ্রে ইভিএম মেশিন ভাঙচুর করে। এরপর আমাদের প্রার্থী ইসমাইল হোসেন বালিকে আটক করে। তাকে আটকরে কারণ জানতে চাইলেও জানাচ্ছে না পুলিশ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, সংঘর্ষ ও ইভিএম মেশিন ভাঙচুরের ঘটনায় বিএনপির ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ইসমাইল হোসেন বালিকে আটক করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Ashfaque Bappy
৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ৯:০৩

মোহাম্মদ ইসমাইল বালি অনেকক্ষণ চেষ্টা করেন সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়ার জন্য,এবং ভোটারদেরকে উৎসাহিত করেন ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার জন্য,কিন্তু যারা ভোট দিতে গিয়েছিল তারা ফিরে এসে বললো তাদেরকে ভোট দেয়া হতে বাধা দেয়,এবং ভোট দিতে না পারার কারণ জানতে চাইলে তাদেরকে মারধর করা হয়,এবং আপনারা গণমাধ্যম হয়তোবা জেনেছেন কিছু অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা ভোট কেন্দ্র দখল করে রয়েছে এবং ইসমাইল বালির কিছু কর্মীদেরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে ইসমাইল বামির কর্মীরা ঐ কেন্দ্রে যে সন্ত্রাসীরা ভোট কেন্দ্র দখল করে রাখেন তাদিকে ধাওয়া করেন।কিন্তু ইসমাইল বালি অনেক চেষ্টা করেন কর্মিদের শান্ত রাখতে কিন্তুু ভোট কেন্দ্র বেহাল অবস্তা দেখে কর্মিদের আর ধরে রাখতে পারেনি।ইসমাইল বালির কর্মি বলতে তার এলাকাবাসীরা।

অন্যান্য খবর