× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার
কর্মকর্তা হত্যা

সিলেটে ব্যাংকাররা রাস্তায়

প্রথম পাতা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার

ব্যাংকার মওদুদ আহমদের খুনিদের গ্রেপ্তার দাবিতে উত্তাল সিলেটের রাজপথ। প্রতিবাদমুখর হয়ে উঠেছে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে। গতকাল ব্যাংকার এসোসিয়েশনের ডাকে আয়োজিত প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন, সুধীজনসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। সবার দাবি একটাই- খুনিদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা। কর্মসূচি শেষে সমাবেশে বক্তারা প্রশাসনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন- দ্রুততম সময়ের মধ্যে খুনিরা গ্রেপ্তার না হলে তারা বৃহৎ কর্মসূচি ঘোষণা করবেন। এদিকে- ঘটনার চারদিন পেরিয়ে গেলেও গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ ব্যাংকার মওদুদ আহমদের খুনিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি। তবে- গত সোমবার রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শহরতলীর শাহপুর থেকে খুনের ঘটনার প্রধান আসামি সিএনজিচালক নোমান হাসনুর ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিকশা উদ্ধার করেছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের কয়েকটি টিম অভিযানে রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সিনিয়র কর্মকর্তারা।
শনিবার রাতে নগরীর আলোচিত বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির একশ’ গজের ভেতরে সিএনজি অটোরিকশার পরিবহন শ্রমিকরা পিটিয়ে হত্যা করে অগ্রণী ব্যাংক সিলেট গ্যাস ফিল্ড শাখার সিনিয়র অফিসার মওদুদ আহমদকে। পরে তারা ঘটনাটিকে সড়ক দুর্ঘটনা বলে প্রচার করেছিল। কিন্তু লাশের মুখ ও শরীরের লীলা, ফুলা জখম দেখে পুলিশের সন্দেহ হলে তারা প্রযুক্তির আশ্রয় নেয়। নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকা পুরোটাই হচ্ছে সিসিটিভি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। পুলিশ ফুটেজ দেখে নিশ্চিত হয় যে- কোর্ট পয়েন্টে সিএনজি অটোরিকশা চালক নোমান হাসনুরসহ আরো ৩-৪ জন পিটিয়ে হত্যা করেছে মওদুদকে। পুলিশ হামলাকারী সবার পরিচয়ও নিশ্চিত করে। ঘটনার পর পুলিশ হত্যা মামলা হিসেবে রেকর্ড করে আসামি গ্রেপ্তারে অভিযান চালালেও এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। কোর্ট পয়েন্ট ছেড়ে পালিয়েছে ব্যাংকার মওদুদের ঘাতকরা। রয়েছে আত্মগোপনে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি (মিডিয়া) মো. আশরাফউল্লাহ তাহের জানিয়েছেন- প্রধান আসামি নোমান হাসনুর ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিকশাটি শহরতলীর শাহপুর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। এদিকে- ব্যাংকার মওদুদ আহমদ খুনের ঘটনায় সিলেটের ক্ষোভ বাড়ছে। গতকাল সিলেটের ব্যাংকার এসোসিয়েশনের উদ্যোগে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ডাক দেয়া হয়েছিল প্রতিবাদ কর্মসূচির। এই কর্মসূচিতে সিলেটের সর্বস্তরের ব্যাংক কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ, ব্যাংক কর্মচারী ফেডারেশন, অগ্রণী ব্যাংক কর্মচারী সংসদ, সোনালী ব্যাংক, তরুণ পেশাজীবী সমিতি ও অগ্রণী ব্যাংক অফিসার্স সমিতিসহ অন্তত ২০টি সংগঠনের পক্ষ থেকে মানুষ অংশ নেয়। বিকাল ৪টা থেকে শহীদ মিনারের সামনের রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে নিহত ব্যাংকার মওদুদের সহকর্মীরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। সহকর্মীরা জানান- ব্যাংকার মওদুদের একমাত্র কন্যার বয়স ১ মাস ১০ দিন। এই বয়সে সন্তানটি এতিম হয়ে গেল। ভাড়া দেয়াকে কেন্দ্র করে একজন ব্যাংকারকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা কোনোভাবে মেনে নেয়া যায় না। তারা ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবি করেন। সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আবু তাহের মো. শোয়েব, নাট্য সংগঠক শামসুল বাসিত শেরো, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম এই মানববন্ধনে একাত্মতা পোষণ করে ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যার বিচার দাবি করেন। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি চলাকালে বক্তারা বলেন- মওদুদ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার এবং এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হওয়া পর্যন্ত তারা রাজপথ ছাড়বেন না। সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের নৈরাজ্য চলছে। এই নৈরাজ্য ও দৌরাত্ম্য বন্ধ করতে হবে। নতুবা আরো অনেককে এভাবে প্রাণ দিতে হবে। অগ্রণী ব্যাংক অফিসার্স সমিতি সিলেটের সভাপতি ওলিউর রহমান জানিয়েছেন- ‘পিটিয়ে হত্যা করা মওদুদ আহমদ আমার সহকর্মী। তিনি সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার অগ্রণী ব্যাংক, হরিপুর গ্যাস ফিল্ড শাখার অফিসার (ক্যাশ) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নগরীর রাজারগলির একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। মূল বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলার টেংগুরিপাড়া গ্রামে। গত সোমবার জানাজা শেষে তার লাশ দাফন হয়েছে। তিনি জানান, হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি আড়াল করার অপচেষ্টা ছিল ঘাতকদের। হত্যার বিষয়টি ফাঁস হলেও জানাজানি হতে সময় লেগে যায়।’ মানববন্ধন শেষে স্বাধীনতা ব্যাংকার্স পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট নিশি মোহন নাথ জানিয়েছেন- ‘আপাতত আমরা মওদুদ আহমদের ‘খুনিদের’ দ্রুত গ্রেপ্তার করে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার দাবিতে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছি। গতকাল সিলেটের সকল ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রতীকী প্রতিবাদ জানাবো। তারপরও দোষীরা গ্রেপ্তার না হলে আলোচনার মাধ্যমে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
আজিজুল
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ৯:১৬

ব‍্যাংকারদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে সমর্থন জানাচ্ছি ।

S.M. REAZ
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১২:২১

Justice for all................

Kazi
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার, ৪:২৩

পূর্ণ সমর্থন রইল । সামান্য ভাড়ার টাকার জন্য পিটিয়ে হত্যা সহ্য করার নয়।

অন্যান্য খবর