× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৮ এপ্রিল ২০২১, রবিবার

পাওনা টাকা আনতে গিয়ে ব্যবসায়ী নিখোঁজ, সকালে মিলল লাশ

অনলাইন

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি
(১ মাস আগে) ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, বুধবার, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
নিহত আজাদ

ঢাকার ধামরাইয়ে ব্যবসায়ী আজাদ পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ হন। রাতভর তার কোন খোঁজ না পেলেও গতকাল সকালে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলি বাসস্ট্যান্ডের পূর্ব পাশে থেকে তার ক্ষতবিক্ষত লাশ দেখতে পান এলাকাবাসী। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেনশ। পরিবারের দাবি, তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর লাশ মহাসড়কের পাশে ফেলে পালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তবে পুলিশ বলছে, তাকে হত্যা করা হয়েছে না সে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে তা লাশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ধামরাইয়ের  কিশোরিনগর গ্রামের বাবুল বিশ^াসের ছেলে আজাদ বিশ^াস (২৮) বাথুলি কেবিসি কারখানায় চাকরির পাশাপাশি ধানের কুড়া ও ভোজ্যতেলের ব্যবসা করতেন। মাস তিন আগে চাকরি ছেড়ে দিয়ে ধামরাইয়ের কেবিসি ও গাজীপুরের বিভিন্ন কারখানায় ধানের কুড়া সরবরাহ করতো। আর এ ব্যবসা করার জন্য বাবুল বিশ্বাস কয়েকটি এনজিও থেকে ঋণ তুলে প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়েছিলেন ছেলে আজাদকে। গত সোমবার বিকেলে আসরের নামাজ পড়ে নিজ বাড়ি থেকে আজাদ পাওনা টাকা আনার জন্য সাভারের নয়ারহাট যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন।
সারা রাত সে আর ফিরে আসেনি। আর কার কাছে টাকা পান তা বলে না যাওয়ায় ওই খোঁজও করতে পারেনি পরিবারের লোকজন। তবে তার বাবা  বাবুল বিশ্বাস  সাংবাদিকদের বলেন, সন্ধ্যার পর  ছেলের সঙ্গে মোবাইলে আমার কয়েক দফায় কথা হয়েছে। সব শেষে রাত পৌনে ৯টায় আজাদ আমাকে বলেছে, টাকা দেই দিচ্ছি করে আমাকে ঘুরাচ্ছে। আমি বেশি কথা বলতে পারছি না, বিপদে আছি, আমাকে নয়ারহাট থেকে ধামরাই নিয়ে যাচ্ছে। এ কথা বলার পর আর মোবাইল ফোন রিসিভ করেনি আজাদ। এরপর  সকালেই খবর পান ধামরাইয়ের বাথুলি বাসস্ট্যান্ডের পাশে ছেলের ক্ষতবিক্ষত লাশ পড়ে আছে। তবে পরিবারের দাবি, যাদের কাছে টাকা পাবে তারাই আজাদকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ সড়কের পাশে ফেলে রেখে গেছে।

এব্যাপারে ধামরাই থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে অজ্ঞাত কোন গাড়ির চাপায় মারা গেছে আজাদ বিশ্বাস। তবে কেউ যদি তাকে হত্যা করে থাকে ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
কাজি
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:৪৯

বৈধ উপায়ে রুজি করে বাঁচার নিশ্চয়তা নাই। এমন দেশ কোথাও নাই। একমাত্র বাঙলা দেশ ছাড়া।

কাজি
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার, ১১:৪৪

ব্যবসা করে খাবে সেই নিরাপত্তা নাই দেশে। হয় উপাস মরতে হবে নতুবা খুনের শিকার।

Jamshed Patwari
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বুধবার, ১১:০৫

পিতার সাথে ফোনালাপে পরিস্কার তাকে হত্যা করা হয়েছে। হত্যা করে গাড়ী চাপা দিতে পারে যাতে প্রতীয়মান হয় গাড়ী চাপায় মৃত্যু হয়েছে। এসব এখন নিতনৈমিত্রিক ব্যাপার।

অন্যান্য খবর