× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১২ এপ্রিল ২০২১, সোমবার

তুলে নিয়ে কিশোরকে নির্যাতন, মৃত ভেবে ফেলে গেল বিএসএফ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, ঠাকুরগাঁও থেকে
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

জমিতে বোরো ধানের চারা রোপণ করার সময় শাহ আলম (১৭) নামে এক কিশোরকে তুলে নিয়ে বেধড়ক মারপিট করেছে বিএসএফ। পরে তাকে মৃত ভেবে সীমান্তের কাছে ফেলে গেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সদস্যরা। গত মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বেতনা সীমান্তের ৩৬৭ পিলারের কাছে এ ঘটনা ঘটে। বেতনা বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার হাবিব এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ভারতের কোয়ালিঘর ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা ওই কিশোরের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে পতাকা বৈঠক করার জন্য বিএসএফকে চিঠি প্রদান করা হয়েছে। আহত শাহ আলম হরিপুর উপজেলার মানিকখাড়ী গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। তিনি বর্তমানে হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক সজিব জানান, তার চিকিৎসা চলছে।
শরীরে বিভিন্ন ধরনের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
আহত কিশোরের বাবা নজরুল ইসলাম জানান, সকালে সীমান্তের ৩৬৭নং পিলারের কাছে নিজের জমিতে বোরো ধান রোপণ করছিল শাহ আলম। দুপুরে হঠাৎ কোয়ালিঘর ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা এসে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তাকে কাঁটাতারের কাছে নিয়ে পাশবিক নির্যাতন চালায়। নির্যাতনের কারণে শাহ আলম অজ্ঞান হয়ে গেলে মৃত ভেবে ফেলে চলে যায় বিএসএফ সদস্যরা। শাহ আলমের বাবা আরো বলেন, স্থানীয়রা এ খবর দিলে আমরা সকলে গিয়ে শাহ আলমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। ছেলের ওপর নির্মম নির্যাতনের বিচারের পাশাপাশি সীমান্তে নিরাপত্তার সঙ্গে কৃষি কাজ করার নিশ্চয়তা দাবি করেছেন নজরুল ইসলামসহ স্থানীয় কৃষকরা। এ বিষয়ে জানতে ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল শহিদুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর