× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২১, বুধবার
গ্রাহকের টাকা আত্মসাৎ

কুমিল্লায় পূবালী ব্যাংকের ২ কর্মচারী গ্রেপ্তার

বাংলারজমিন

লালমাই (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার

গ্রাহকের সেভিংস অ্যাকাউন্ট থেকে ৬ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের কুমিল্লা পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড শাখার নাইটগার্ড এরশাদ ও ক্লিনার তাপস কুমার দাসকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে ব্যাংক থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী গ্রাহক নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ব্যাংকের অজ্ঞাতনামা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ৬ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
মামলার বিবরণ ও ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামের হারুন মিয়ার ছেলে ট্রাকচালক নজরুল ইসলাম পূবালী ব্যাংক, পদুয়ার বাজার শাখার একজন সেভিংস অ্যাকাউন্ট হোল্ডার। তার অ্যাকাউন্টে নিজের জমানো ও প্রবাসী ভাইয়ের পাঠানো মোট ৬ লাখ ৪৪ হাজার ৩৬৭ টাকা ছিল। গত ১৮ই ফেব্রুয়ারি বিকাল ৪টার দিকে গ্রাহক নজরুলের মোবাইলে পূবালী ব্যাংক থেকে ৬ লাখ টাকা উত্তোলনের একটি এসএমএস যায়। ওই সময় তিনি জেলার অন্য একটি উপজেলায় অবস্থান করায় দ্রুত ব্যাংকে যোগাযোগ করতে পারেননি। পরবর্তী তিনদিন (শুক্র, শনি ও রোববার) ব্যাংক বন্ধ থাকায় তিনি সোমবার ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন তার অ্যাকাউন্ট থেকে ৬ লাখ টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। এ ঘটনায় গ্রাহক নজরুল ইসলাম কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় গত মঙ্গলবার সকালে সাধারণ ডায়েরি করেন এবং রাতে ব্যাংকের অজ্ঞাতনামা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।
এদিকে গ্রাহকের অজ্ঞাতসারে টাকা উত্তোলনের ভিডিও ফুটেজ ধ্বংস করতে দুষ্কৃতিকারীরা ব্যাংকের সিসিটিভির হার্ডডিস্ক পুড়িয়ে দিয়েছে এবং ব্যাংকের পূর্বপাশের একটি ভেন্টিলেটর ভেঙে ফেলেছে। এ ঘটনায় ব্যাংকের সেকেন্ড অফিসার জাহিদুল ইসলাম সংশ্লিষ্ট থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের কুমিল্লার ডিজিএম লতিফুর রহমান বলেন, টাকা উত্তোলনের ঘটনায় গ্রাহকের মামলায় দুই কর্মচারীকে গ্রেপ্তারে আমরাই সহায়তা করেছি। ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ও জোনাল অফিস থেকে অডিট চলছে। 

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর